সংবাদ শিরোনাম:
টাঙ্গাইলে একইসাথে দুই করোনা যোদ্ধার জন্মদিন উদযাপন এমপি মমতা হেনা লাভলীর টাঙ্গাইলে বন্যার্তদের মাঝে ত্রান বিতরণ সার্ক মানবাধিকার ফাউন্ডেশন, টাঙ্গাইল জেলা শাখার নতুন কমিটি এমপি হিরোর বিরুদ্ধে সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা লাগানোর অপচেষ্টার অভিযোগ টাঙ্গাইলে ছাত্রলীগ কর্তৃক বৃক্ষরোপণ কর্মসূচী পালন মানিক শিকদারের ব্যবস্থাপনায় টাঙ্গাইলে জাতীয় শোক দিবস পালন টাঙ্গাইলের পৌর মেয়র জামিলুর রহমানে মিরনের ব্যবস্থাপনায় টাঙ্গাইলে শোক দিবস পালন প্রবাসে থেকেও থেমে নেই টাঙ্গাইলের মুজাহিদুল ইসলাম শিপন মেয়র লোকমানের আত্মস্বীকৃত খুনি এমপি সাহেবের প্রোগ্রামে সক্রিয় জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি নিজেই প্রধান অতিথী, সভাপতিত্ব করবেন কে?
আড়াইহাজারে ভাবী কর্তৃক দেবরের পুরুষাঙ্গ কর্তন

আড়াইহাজারে ভাবী কর্তৃক দেবরের পুরুষাঙ্গ কর্তন

ভাবী কর্তৃক দেবরের পুরুষাঙ্গ কর্তন
ভাবী কর্তৃক দেবরের পুরুষাঙ্গ কর্তন

শনিবার রাতে ঘটনাটি ঘটে আড়াই হাজার উপজেলায়। দেবরের লিঙ্গ কেটে নিয়েছে তার আপন বড় ভাই এর স্ত্রী। বড় ভাই তাজুলের স্ত্রীকে ধর্ষণ করতে গিয়ে পুরুষাঙ্গ হারাতে হল দেবর মনির কে। শনিবার দিবাগত রাতে ১১টার দিকে নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজার উপজেলার উচিৎপুরা ইউনিয়নের জাঙ্গালিয়া বুরুমদীপাড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। মুমূর্ষু অবস্থায় মনিরকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করেছে পরিবারের অন্যান্য সদস্যগণ।

আড়াইহাজার উপজেলার মৃত সাদেকুর রহমানের দুেই ছেলে তাজুল ইসলাম ও মনিরুল ইসলাম। দীর্ঘ ৬ বছর ধরে দুবাই প্রবাসে আছেন তাজুল ইসলাম। দুই সন্তানসহ স্ত্রী সুমাইয়া স্বামির বাড়িতেই থাকেন। সুমাইয়ার দেবর মনির দীর্ঘ দিন যাবত সুমাইয়ার সঙ্গে অনৈতিক সম্পর্ক স্থাপনের চেষ্টা করে যাচ্ছেন। কিন্তু সুমাইয়া সুযোগ না দেয়ায় তিনি ব্যর্থ হোন।

শনিবার রাতে সুমাইয়াকে জোর পূর্বক ধর্ষণ করতে যায় মনিরুল ইসলাম মনির। সুমাইয়া আগে থেকেই নিরাপত্তার জন্য প্রস্তুত রাখা ধারালো অস্ত্র দিয়ে মনিরের পুরুষাঙ্গ তাৎক্ষণিক কেটে ফেলেন।

মনিরের চিৎকারে আশেপাশের লোকজন ছুটে আসে। অবস্থা খুবই খারাপ হওয়াতে বাড়ির লোকজন দ্রুত তাকে প্রথমে আড়াইহাজার উপজেলা স্বাস্থ্য কেন্দ্রে এবং পরে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করে। বিষয়টা দ্রুত চারিদিকে ছড়িয়ে পরে। আড়াই হাজার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এ চিকিৎসা দিতে ব্যর্থ হোন চিকিৎসকরা। তারা বলেন “প্রচুর ব্লেডিং হচ্ছে। সঠিক চিকিৎসা এখানে দেয়া সম্ভব নয়। তাই তারা ঢাকাতে পাঠাতে বাধ্য হয়েছেন।”

স্থানীয় ইউপি সদস্য মো. আলমগীর হোসেন জানান, ‘ঘটনা সত্য। কোন অঘটন এড়াতে ওই মহিলাকে নজরদারীতে রেখেছে এলাকাবাসী। মহিলা কোথাও পালিয়ে যাবেন তেমন সুযোগ নেই। তাকে পালানোর মত কোনো উদ্যোগ নিতেও দেখা যায়নি।”

আড়াইহাজার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা বলেন ‘এখনো কোন অভিযোগ পাইনি। এমন ঘটনা লোকমুখে শুনেছি। অভিযোগ পেলে আমরা আইনত ব্যবস্থা গ্রহণ করবো।”

মনিরের মা বলেন “বউ আসলে বেশি বেশি করছে। বাড়াবাড়ি করছে। তার এই রহম করা মুঠেও উচিত অয় নাই। আমার পোলাডার জীবন এক্কেরে শেষ করে দিছে। ও আর বাঁইচা থাইকাই কি করবো? ওর জীবনের কোন দাম আছে? নিজের দেবরই তো আছিল। এইটা কোন মানুষের কাম? এইটা কোন মানুষের কাম অইতে পারে না।”

ভাবী সুমাইয়া বলেন “আমি ৬ বছর যাবত তার কু-দৃষ্টি, অত্যাচার, কু-কথা সহ্য করতেছি। দেবর হিসেবে তাকে অনেকবার ধমক দিয়েছি। বুঝিয়েছি। বলেছি তোমার ভাইকে বলে দিবো। তারপর-ও সে প্রতিনিয়ত তার চোখ দ্বারা আমাকে খুবলে খুবলে খেয়েছে। কি সব বাজে ভাষা বলেছে যা আর বা সম্ভব না। আমার স্বামি দেশের বাইরে থাকে। আমার ইজ্জ্বত আমার কাছে আমানত। আমি নিজেকে রক্ষা করতে এটা করেছি। এতে করে যেন অন্য সব পুরুষদেরও শিক্ষা হয়। কেউ যেন মহিলাদের দুর্বল ভেবে অত্যাচার করতে না পারে। আমাকে আদালত শাস্তি দিতে পারে, অনেকেই বলতেছে। আমার কাছে আমার সম্মান বড়, শাস্তি না। আমি যা করছি, সঠিক করছি। আমার ছেলে মেয়ের সামনে আমি মুখ দেখাতে পারতাম না যদি একবার ও আমাকে …………………… । আমার স্বামিকে আমি কি জবাব দিতাম? আমি নিজেকে রক্ষা করতে যা করার করেছি।” তিনি কান্নায় ভেঙ্গে পড়েন।

এলাকাবাসীর সাথে কথা বলে জানা যায় মনির লম্পট প্রকৃতির একটা ছেলে। যে অনেক আগে থেকেই এলাকার অনেক মেয়ে-বৌ-ঝিদের উত্যক্ত করত। ভাই বিদেশ থাকায় এই সুযোগে সে ভাবীকে ব্যবহার করতে চাইতো। নিজের বড় ভাইয়ের স্ত্রীকে সবাই মায়ের চোখে দেখলেও মনির কখনো তাকে একজন নারী ছাড়া অন্য কিছু ভাবে নাই। সবসময় ভাবীর দেহের দিকে তার লোভ ছিল। বেশ কয়েকজন এলাকার মাস্তান বা সন্ত্রাসী টাইপ নেশাখোরের উঠাবসা আছে মনিরের।

মনিরের এখন যে অবস্থা হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ কথা বলতে বারণ করেন।

খবরটি শেয়ার করুন..

Comments are closed.




© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি ।
নির্মান ও ডিজাইন: সুশান্ত কুমার মোবাইল: 01748962840