সংবাদ শিরোনাম:
টাঙ্গাইলে একইসাথে দুই করোনা যোদ্ধার জন্মদিন উদযাপন এমপি মমতা হেনা লাভলীর টাঙ্গাইলে বন্যার্তদের মাঝে ত্রান বিতরণ সার্ক মানবাধিকার ফাউন্ডেশন, টাঙ্গাইল জেলা শাখার নতুন কমিটি এমপি হিরোর বিরুদ্ধে সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা লাগানোর অপচেষ্টার অভিযোগ টাঙ্গাইলে ছাত্রলীগ কর্তৃক বৃক্ষরোপণ কর্মসূচী পালন মানিক শিকদারের ব্যবস্থাপনায় টাঙ্গাইলে জাতীয় শোক দিবস পালন টাঙ্গাইলের পৌর মেয়র জামিলুর রহমানে মিরনের ব্যবস্থাপনায় টাঙ্গাইলে শোক দিবস পালন প্রবাসে থেকেও থেমে নেই টাঙ্গাইলের মুজাহিদুল ইসলাম শিপন মেয়র লোকমানের আত্মস্বীকৃত খুনি এমপি সাহেবের প্রোগ্রামে সক্রিয় জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি নিজেই প্রধান অতিথী, সভাপতিত্ব করবেন কে?

ইফতারদাতাদের ময়না তদন্ত

doinik71.com

গতোকাল বিকাল ৩ টা থেকে দেখতে পেলাম একজন ব্যক্তি বারবার লাইভে আসছে। সে ইফতারি তৈরি নিয়ে বেশ ব্যস্ত। ভদ্র মেয়েটির সাথে আর-ও বেশকিছু মেয়ে আছে। তারা লাইভে বারবার জানান দিতে থাকে তারা ইফতার বিলি করবে। ডিএসএলআর নিয়ে বেশ কয়েকজন প্রস্তুত। ছেলে মেয়েরা মিলে মিশে ইফতার তৈরি করলো। কারো গায়ের কাপড়ের কোন চিন্তা ভাবনা নেই। বেশ সুস্বাদু খাবার তৈরি করে তারা বিলাতে গেলো। সেখানে ক্যামেরা ম্যানরা আছে তাদের সাথে চলছে লাইভ। ইফতার শুরু হয় ৬ টা ৪৪ মিনিটে। অন্য একটি লাইভে দেখতে পেলাম ৬ টা ৫০ থেকে লাইভ হচ্ছে। একজনের সামনে ৩ টা বিরিয়ানির প্যাকেট। সে খাচ্ছে। ইনি ইফতারের আয়োজক কমিটির একজন। সাথে আছে সম্ভবতো ২.২৫ লিটার এর একটা কোক। তার এই লাইভ চলছে ৭.৩০ পর্যন্ত যখন দেখলাম। এরা আসরের বা মাগরিবের নামাজ কেউ পরেনি সেটাও নিশ্চিত। এরকম বেপর্দা হয়ে নারীদের ইসলামে কোথায় ইফতার বিলি করার অনুমতি দেয়া আছে সেটা কেবল তারাই বলতে পারবে। কোথায় ধর্ম? কোথায় মানবতা? ভিডিওতে দেখতে পেলাম ইফতার নেয়ার জন্য ৫ টার পর থেকেই ১০-১৫ জন পায়জামা পাঞ্জাবি পরা ছেলেরা দাঁড়িয়ে আছে। এতে স্পষ্টই বুঝা গেলো এরা কোন না কোন মাদ্রাসার ছাত্র। মাদ্রাসায় বাবা মা কষ্ট করে হাজার হাজার টাকা দিয়ে পড়ালেও বিভিন্ন মাদ্রাসা বিভিন্ন অযুহাতে বিশিষ্ট জনের কাছ থেকে স্বনামে-বেনামে টাকা নিয়ে থাকেন। কেউ হয়তো বলছেন এতিম দের ইফতার করাবেন বা সেহেরীর খাবারের জন্য অথবা ঈদের ড্রেস কিনে দিবেন। 
যাইহোক ইফতার বিতরণ কারীদের নিয়ে কথা বলছিলাম আসলেই ইফতার নিয়ে শো অফ করার জিনিস! সেল্ফি তুলবেন, লাইভ করবেন এজন্যই ইফতার! আপনারা কি ভাল মানুষ না ভাল মুসলিম। আপনারা ভালো মানুষ-ও নন, ভালো মুসলিম-ও নন। আপনারা সমাজের এবং ইসলামের এক ধরনের কীট। যাদের কারনে ভিধর্মীরা মুসলমানদের হেয় করার সুযোগ পায় এবং কুকথা বলতে পারে।
ধরেই নিলাম লোক দেখানো ইফতার বিলি করেন নি। সত্যি-ই রোজা ধারদের ইফতার করানোর ইচ্ছে ছিল। তবে ৩ প্যাকেট ইফতার কি করে আপনি খেতে পারেন!
আপনি কোন আইনে পারেন নামাজ বাদ দিয়ে ইফতার নিয়ে নাটক করতে?
আপনি কোন আইনে পারেন ইফতার বিলির লাইভ ভিডিও করে নিজেকে দানবীর হিসেবে শো অফ করতে?
আপনি কোন আইনে পারেন নারী হয়ে বেপর্দা ভাবে লাইভ ভিডিওতে আসতে? 
আপনি/আপনারা কি নেকি কামানোর উদ্দেশ্যে এই কাজ করলেন না কি জাহান্নামে যাবার টিকেট কনফার্ম করলেন?
এসব ইফতার বিতরণের নাটক যারা করেন তারা কি সত্যি সওয়াব পাবে না পাপের ভাগীদার হবে?
ইসলাম ধর্মের আইন কখনো লোক দেখানো কাজ করতে উৎসাহিত করে না। পারলে মন থেকে ভালো কাজ করুন। প্রচারণা নয়, সত্যিই ভালো কাজ করুন। প্রচারের জন্য নয়, ভালো মানুষ হোন। 
জাহান্নামের সর্বনিম্ন স্তরে নিশ্চয় আপনাদের মতো কীট দের অবস্থান।
আমি উক্ত ব্যক্তিদের লাইভে গিয়ে জিঙ্গাসা করি তারা আছর আর মাগরিবের নামাজ পড়েছিলেন কি না। তারা কেউ উত্তর করে নি। অনেক সময় পরে তাদের দলনেতা একটা রিঅ্যাক্ট করেছেন তাতে বুঝলাম নামাজ কি সেটাই বোধহয় তিনি জানেন না। এই হলো আমাদের দেশে ইফতার বিলায় যারা তাদের অবস্থা।

নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন: “যে ব্যক্তি কোন রোজাদারকে ইফতার করাবে সে রোজাদারের সম পরিমাণ সওয়াব পাবে; রোজাদারের সওয়াব থেকে একটুও কমানো হবে না।”সুনানে তিরমিযি (৮০৭)। অনেকেই এই হাদিসটিকে অনুসরন করেন। নিজেরা অন্যকে ইফতার করান। কিন্তু নিজেই রোজা রাখেন না। ইফতার বিতরণ করছেন অথচ নামাজ আদায় করেন নি। নারী হয়ে বেপর্দা হয়ে চলছেন ইফতার সামগ্রী বিতরণের সময়। এসব করে কি আসলে সওয়াব অর্জিত হবে!

নিজেকে সংশোধন করুন। এখনো সময় আছে তওবা করে এসব ভন্ডামির জন্য ক্ষমা চান। আল্লাহ্ চাইলে যে কোন সময় যে কাউকে ক্ষমা করতে পারেন।

খবরটি শেয়ার করুন..

Comments are closed.




© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি ।
নির্মান ও ডিজাইন: সুশান্ত কুমার মোবাইল: 01748962840