সংবাদ শিরোনাম:
দ্বিতীয়বারের মতো ঢাকার সেরা অফিসার ইনচার্জ ফারুক হোসেন ‘ভোট জালিয়াতি’ তদন্তের নির্দেশ চট্টগ্রামে গলায় ছুরি ধরে গৃহবধূকে গণধর্ষণ, ধর্ষকদের বাঁচাতে কাউন্সিলরপ্রার্থী বেলালের দৌড়ঝাঁপ নারী নির্যাতন মামলায় বিজয়নগর উপজেলা ছাত্রলীগের বিবাহিত সভাপতি মাহবুব হোসেন কারাগারে দুই নবজাতকের লাশ নিয়ে হাইকোর্টে বাবা কনস্টেবলকে মারধর, শ্রমিকলীগ নেতার স্ত্রী কারাগারে অবক্ষয় থেকে তরুণ সমাজকে রক্ষা করতে চলচ্চিত্রের ব্যাপক ভূমিকা রয়েছে- তথ্যমন্ত্রী পরিবার পরিকল্পনা অধিদপ্তর নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি 2020 কর কমিশনারের কার্যালয়ে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি ২০২০ ৯ দিনে করোনা জয়ী তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ
এমপি হিরোর বিরুদ্ধে সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা লাগানোর অপচেষ্টার অভিযোগ

এমপি হিরোর বিরুদ্ধে সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা লাগানোর অপচেষ্টার অভিযোগ

সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা
সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা

এমপি হিরো সাহেব গত ১৫ই আগষ্ট তার বক্তব্যে বলেন, “পাশেই হিন্দু মন্দির।বাংলাদেশের হাজার হাজার বছরের ঐতিহ্য। হিন্দু মুসলমান ভাই ভাইয়ের মত একসাথে বসবাস করে। মুসলমানদের ঈদের দিনে হিন্দু সেখানে উৎসব করে।হিন্দুদের পূজা-পার্বণে মুসলমান সেখানে অংশগ্রহণ করে। এই হিন্দু মন্দিরের সামনে নরসিংদীর হাজার বছরের ঐতিহ্য ভঙ্গ করে হিন্দু মন্দির এর দরজার সামনে গরু জবাই করে। সেটাকে হিন্দু ধর্মের তারা অদম্য অহিতকর অন্যায় বলে মনে করে। মুসলমানদের জন্য এটা ঠিক আছে কিন্তু কোন মুসলমান যদি হিন্দু মন্দিরের মাঝে গিয়ে গরু জবাই করে সেইটা আল্লাহ মাফ করেন না।এখানে যদি কোন আলেম থেকে থাকেন আমি ভুল করলে চ্যালেঞ্জ করেন। আমাকে সংশোধন করেন। হিন্দু মন্দিরে অন্য কোন ধর্মের … সেটার পবিত্রতা নষ্ট করলে আল্লাহ তাঁকে ক্ষমা করেন না ”

বিষয়টি ছিল বর্তমান মেয়র কামরুলের বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ। তিনি তার বক্তব্যে স্পষ্টই বলেন হিন্দু মন্দিরের সামনে গরু জবাই করা হয়েছে। গরু জবাই করে শোক দিবস পালন করেছেন। এমতাবস্থায় হিন্দু ধর্মের অনুসারীগণ ক্ষিপ্ত হয়ে মেয়র কামরুলের বিরুদ্ধে ক্রোধে ফেটে পড়েন। বিস্ফোরণযোগ্য বিভিন্ন মন্তব্য করেন।

সুব্রত দাস নামের একজন হিন্দু নেতাও প্ররোচনায় পরে আক্রমনাত্বক বক্তব্য প্রদান করেন। পরবর্তীতে তিনি সঠিক অবস্থা জানার পর নিজের ফেসবুক ওয়াল থেকে তার একটি ভিডিও বিবৃতি প্রকাশ করেন। সেখানে তিনি বলেন “১৫ ই আগস্ট জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে মন্দির ভিত্তিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠান হিন্দু কল্যাণ ট্রাস্ট কর্তৃক আয়োজিত একটি অনুষ্ঠানে আমাকে মিথ্যা দ্বারা প্ররোচিত করে, বিভ্রান্ত করে আমাকে দিয়ে মাননীয় মেয়র মহোদয় এর বিরুদ্ধে দয়াময় মন্দিরের সামনে গোহত্যার মিথ্যা তথ্য দেয়া হয়েছে। সেদিন প্রকৃত পক্ষে এই ধরনের কোন ঘটনাই ঘটেনি। এটি মিথ্যা ও বানোয়াট। যারা এটি করেছে অনতিবিলম্বে শাস্তি দাবী করছি।পাশাপাশি আমার এই বক্তব্যের কারণে মাননীয় মেয়র থেকে শুরু করে যারা কষ্ট পেয়েছেন তার জন্য আমি ক্ষমা প্রার্থী। নরসিংদী পূজা উদযাপন পরিষদে ভবিষ্যতে এ ব্যপারে সর্তক থাকবে ”

এই কুচক্রী মহল থেকে সকলকে সর্তক থাকার আহবান জানান হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিষ্টান ঐক্য জোটের জেলার সভাপতি অধ্যাপক অহিভূষণ চক্রবর্তী।

সাধারণ সম্পাদক রঞ্জন সাহা বলেন “এরকম মিথ্যা ও বানোয়াট ভুল তথ্য প্রণোদিত ইচ্ছাকৃত বক্তব্য প্রদানের মুল কারন হলো হিন্দু মুসলিম ভাইয়ে ভাইয়ে সংঘাত সৃষ্টি করা। রক্তারক্তি করা, দাঙ্গা বাজানো। আমরা এরকম মিথ্যা বক্তব্যের তীব্র নিন্দা জানাই।”

নরসিংদী জেলা পূজা উদযাপন পরিষদের আহবায়ক অনিল ঘোষ এবং সদস্য সচিব প্রফেসর সুব্রত দাস, আহ্বায়ক কমিটির অন্যতম সদস্য শহর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি শ্যামল সাহা, নরসিংদী জেলা ছাত্র ঐক্য পরিষদের সভাপতি এলটন গোস্বামী, ছাত্র ঐক্য পরিষদের শহর শাখার সভাপতি মিঠুন সাহা, নরসিংদীর জেলা হিন্দু মহাজোটের সাধারণ সম্পাদক অপু সাহা সহ অনেকেই পৃথক পৃথক বিবৃতিতে এমন হীন কর্মকান্ডের জন্য তীব্র নিন্দা প্রকাশ করার পাশাপাশি গভীর উদ্ধেগ প্রকাশ করেন।

মিঠুন সাহা বলেন “আজ যদি হিন্দু মুসলিমে দাঙ্গা বাজতো তার দায় কে নিতো! যদি হিন্দু ধর্মালম্বিরা যাচাই বাছাই না করে আক্রোশের কারনে কোনরুপ দাঙ্গা হাঙ্গামায় জড়িয়ে পরতো তাহলে আজ রক্তাক্ত হয়ে যেতো পর্যায়ক্রমিক সারা বাংলাদেশ। এমপি সাহেবের মতো দায়িত্বশীল ব্যক্তিদের কোন মিথ্যা প্ররোচনা দেয়ার পূর্বে তাদের নিজেদের অবস্থান এবং ওজন সম্পর্কে ভাবা উচিত। এরকম কাজ করার ফলে বাড়তি সমীহ লাভ তো দূরের কথা বরংচ নিজেই ছিটকে পরবেন মানুষের অন্তর থেকে।”

প্রকৃতচিত্র অনুসন্ধান করে দেখা যায় আওয়ামীলীগ অফিসের নীচে কাজল স্টিল কিং এর সামনে গরু জবাই করে শোক দিবসের গণভোজের আয়োজন করা হয়। এখানে অন্য কোন ধর্মের সাথে কোন রেশারেশি ছিল না। মিথ্যা ও বানোয়াট তথ্যের ভিত্তিতে বক্তব্য প্রদান করে একটি কুচক্রি মহল তাদের হীন উদ্দেশ্য চরিতার্থ করতে চাচ্ছিল।

খবরটি শেয়ার করুন..

Comments are closed.




© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি ।
নির্মান ও ডিজাইন: সুশান্ত কুমার মোবাইল: 01748962840