সংবাদ শিরোনাম:
টাঙ্গাইলে একইসাথে দুই করোনা যোদ্ধার জন্মদিন উদযাপন এমপি মমতা হেনা লাভলীর টাঙ্গাইলে বন্যার্তদের মাঝে ত্রান বিতরণ সার্ক মানবাধিকার ফাউন্ডেশন, টাঙ্গাইল জেলা শাখার নতুন কমিটি এমপি হিরোর বিরুদ্ধে সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা লাগানোর অপচেষ্টার অভিযোগ টাঙ্গাইলে ছাত্রলীগ কর্তৃক বৃক্ষরোপণ কর্মসূচী পালন মানিক শিকদারের ব্যবস্থাপনায় টাঙ্গাইলে জাতীয় শোক দিবস পালন টাঙ্গাইলের পৌর মেয়র জামিলুর রহমানে মিরনের ব্যবস্থাপনায় টাঙ্গাইলে শোক দিবস পালন প্রবাসে থেকেও থেমে নেই টাঙ্গাইলের মুজাহিদুল ইসলাম শিপন মেয়র লোকমানের আত্মস্বীকৃত খুনি এমপি সাহেবের প্রোগ্রামে সক্রিয় জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি নিজেই প্রধান অতিথী, সভাপতিত্ব করবেন কে?
কাঁদছে পুরো বাংলাদেশ : নুর আহমদ সিদ্দিকী

কাঁদছে পুরো বাংলাদেশ : নুর আহমদ সিদ্দিকী

আবরার শোকে কাঁদছে বাংলাদেশ
আবরার শোকে কাঁদছে বাংলাদেশ

আবরার ফাহাদ যেন একটি কান্নার নাম। এই নামটি আজ কান্নায় পরিণত হয়েছে সমগ্র বাংলাদেশে। বুয়েট ছাত্র আবরার ফাহাদের অপরাধ সে দেশপ্রেমিক।
দেশের স্বার্থ ও স্বাধীনতা সার্বভৌমত্ব নিয়ে লেখার কারণে তাকে নির্মমভাবে খুন করেছে ছাত্রলীগের নেতা কর্মীরা। একজন মেধাবী ছাত্রকে বর্বর কায়দায় পিটিয়ে মেরে ফেলেছে যারা তাদের বিচার কেমন হবে জানিনা তবে আবরারের জন্য কাঁদছে বাংলাদেশ।
টেকনাফ থেকে তেতুলিয়া রূপসা থেকে পাথুরিয়া সর্বত্র যেন কান্না আর কান্না। আকাশ মেঘাচ্ছন্ন। হচ্ছে অঝরধারায় বৃষ্টিও।তাহলে আকাশও কি আবরারের জন্য কাঁদছে?
তার সহপাঠীদের কান্না দেখলে বুক ফেটে যায়। মনের অজান্তেই চোখ বেয়ে অশ্রু প্রবাহিত হয়। বাংলাদেশের প্রতিটা মা যেন আবরারের জন্য কাঁদছে। মা বাবার আর্তনাদ আর আহাজারি আকাশ বাতাস ভারি করে তুলছে।
বৃদ্ধ দাদা জানেনা তার আদরের নাতি কোথায় আছে । দাদাকে বলা হয়েছে আবরার এক্সিডেন্ট করেছে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরবে। বাড়ি ফিরেছে ঠিকই কিন্তু প্যাকেট বন্দি লাশ হয়ে। দাদার কান্না দেখে কাঁদেনি এমন পাষাণ হৃদয়ে মানুষ নেই।
বুয়েটের প্রতিটি ছাত্র যেন তার ভাইকে হারিয়েছে। কেউ হারিয়ে বন্ধু, সহপাঠী। মা বাবা হারিয়েছে সন্তান,ভাই বোন হারিয়েছে প্রিয় ভাইকে আর বাংলাদেশ হারিয়ে খাঁটি দেশপ্রেমিক একজন। শোকে মুহ্যমান পুরো বাংলাদেশ। নেতা- অভিনেতা সবাই কাঁদছে আবরারের জন্য।
“আবরার তুমি হেরে যাওনি হেরে গেছে বাংলাদেশতুমিই দেশের বন্ধু বটে তাই তো জীবন শেষএক আবরার শহিদ হয়েছে জন্মাবে শত হাজারএরাও একদিন দেশ বাঁচাতে গর্জে উঠবে আবার”
রাজনৈতিক, অরাজনৈতিক দল মত নির্বিশেষে প্রতিবাদ করছে আবরার হত্যার।জাতিসংঘ, জার্মানি, যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্যসহ আন্তর্জাতিক অঙ্গনে প্রতিবাদের ঝড় উঠছে। জানাচ্ছে নিন্দা।
আবরার ফাহাদ হত্যাকে টিআইবি স্বাধীন মত প্রকাশে বাধা ও বাক স্বাধীনতা হরণ উল্লেখ করে বিবৃতি দিয়েছে। জাবিতে আবরার হত্যার বিচার দাবিতে ছাত্রদলের বিক্ষোভ মিছিলে হামলা করেছে ছাত্রলীগ।
আজ লক্ষীপুরে ইশা ছাত্র আন্দোলন বিক্ষোভ মিছিল থেকে ৪ জন কে গ্রেপ্তার করেছে যা স্বাধীন মত প্রকাশ চরম বাধা। দল বুঝিনা আমরা আবরার হত্যার উপযুক্ত বিচার চাই। অতীতে বিশ্বজিৎ হত্যার বিচার না হওয়ায় পুনরায় ইতিহাসের নৃশংস হত্যা কান্ড ঘটেছে।
ছাত্রলীগ অতীতে দেশের স্বার্থে কাজ করলেও এখন একটি উগ্র দলে পরিণত হয়েছে। পেশীশক্তির জোরে তারা এমন অন্যায় নেই যা করছেনা। ছাত্রলীগের গৌরবোজ্জ্বল ইতিহাস আজ আর নেই। রচিত হচ্ছে হাজারো কুকর্মের ইতিহাস।
বাংলাদেশের সকল কলেজ বিশ্ববিদ্যালয়ে আন্দোলন চলছে। ছাত্র সমাজে দ্রোহের আগুন জ্বলছে। মা বোনরা কাঁদছে জায়নামাজে আর পুরুষরা প্রতিবাদ করছে রাজপথে। আবরার মানেই যেন বাংলাদেশ।
বিএনপি, ইসলামী আন্দোলন, ছাত্রদল, ইশা ছাত্র আন্দোলন প্রতিবাদে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করছে। বিএনপি আজ সংবাদ সম্মেলন থেকে আবরার হত্যার বিচারের দাবিতে কর্মসূচি দিয়েছে।
এদিকে আগামীকাল বাদ জুমা ঢাকার জাতীয় মসজিদ বায়তুল মোকাররমের উত্তর গেইটে সমাবেশ ও বিক্ষোভ মিছিল করবে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ। একজন আবরারের জন্য দল মত নির্বিশেষে রাজপথে নেমেছে।
ডাকসুর ভিপি নুরুল হক নুরু ছাত্র সমাজ কে জাগিয়ে তুলছে, নেতৃত্ব দিচ্ছে আন্দোলন সংগ্রামে। আবরার হত্যার বিচার না হওয়া পর্যন্ত আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছে বুয়েটসহ দেশের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্ররা।
আবরারের জন্য যেভাবে মানুষ কাঁদছে অতীতে কারো জন্যে এভাবে কেউ কাঁদেনি। আর ভবিষ্যতে কারো জন্যে কাঁদবে বলে মনে হয়না। আবরার বাংলাদেশের কোটি মানুষের কাছে বীর হিসেবে জায়গা করে নিয়েছে। অনেকেই বলছে ভারত বিরুধী সংগ্রামে প্রথম শহিদ আবরার ফাহাদ।
“আবরার তুমি ফিরে এসো বীরের বেশে বাংলায়চেয়ে দেখ কাঁদছে বাংলা তোমারই মায়ায়শোকে মুহ্যমান দেখ পুরো বাংলাদেশ তুমি অমর রবে ইতিহাসের পাতায় খুনিরা হবে শেষআবরার মানে যেন আজিকের বাংলাদেশ।”

খবরটি শেয়ার করুন..

Comments are closed.




© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি ।
নির্মান ও ডিজাইন: সুশান্ত কুমার মোবাইল: 01748962840