সংবাদ শিরোনাম:
টাঙ্গাইলে একইসাথে দুই করোনা যোদ্ধার জন্মদিন উদযাপন এমপি মমতা হেনা লাভলীর টাঙ্গাইলে বন্যার্তদের মাঝে ত্রান বিতরণ সার্ক মানবাধিকার ফাউন্ডেশন, টাঙ্গাইল জেলা শাখার নতুন কমিটি এমপি হিরোর বিরুদ্ধে সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা লাগানোর অপচেষ্টার অভিযোগ টাঙ্গাইলে ছাত্রলীগ কর্তৃক বৃক্ষরোপণ কর্মসূচী পালন মানিক শিকদারের ব্যবস্থাপনায় টাঙ্গাইলে জাতীয় শোক দিবস পালন টাঙ্গাইলের পৌর মেয়র জামিলুর রহমানে মিরনের ব্যবস্থাপনায় টাঙ্গাইলে শোক দিবস পালন প্রবাসে থেকেও থেমে নেই টাঙ্গাইলের মুজাহিদুল ইসলাম শিপন মেয়র লোকমানের আত্মস্বীকৃত খুনি এমপি সাহেবের প্রোগ্রামে সক্রিয় জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি নিজেই প্রধান অতিথী, সভাপতিত্ব করবেন কে?
কেউ পেছনে টানতে পারবে না, আমরা এগিয়ে যাবো- মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

কেউ পেছনে টানতে পারবে না, আমরা এগিয়ে যাবো- মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

শেখ হাসিনার ইটালি সফর
শেখ হাসিনার ইটালি সফর

এ পর্যন্ত যতজন ক্ষমতায় এসেছে, একজনও বাংলাদেশের মাটির সন্তান নয়; একমাত্র আমার বাবা এবং আমি শেখ হাসিনা বাংলাদেশের মাটির সন্তান। আমরা অন্যদেশ থেকে আসিনি। এদেশের মানুষ আমরা, এই দেশেই জন্ম। এই দেশ আর দেশের মানুষকে ভালোবাসাই আমাদের মূলমন্ত্র।

ইতালি সফররত অবস্থায় গতকাল মঙ্গলবার স্থানীয় সময় সন্ধ্যায় রোমের একটি হোটেলে ইতালি আওয়ামী লীগ আয়োজিত সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে মানীয় প্রধানমন্ত্রী বাংলাদেশিদের উদ্দেশ্যে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী হিসেবে এসব কথা বলেন।

প্রধানমন্ত্রী আরো বলেন, জিয়াউর রহমানের জন্ম বিহারে, এরশাদের জন্ম কুচবিহারে, খালেদা জিয়ার জন্ম শিলিগুড়িতে। একজনও এই মাটির সন্তান না। এই মাটির সন্তান- এ পযর্ন্ত যতজন ক্ষমতায় এসেছে আপনারা হিসেবে করে দেখবেন, একজনও বাংলাদেশের মাটির সন্তান না।

একমাত্র আমার বাবা জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এবং আমি শেখ হাসিনা বাংলাদেশের মাটির সন্তান। যে কোন ব্যক্তি যেখানে জন্ম গ্রহন করে তার নিজ জায়গা বা মাটির প্রতি অন্য রকম দরদ দেখায়। দরদ থাকে। তারা কেউ বাংলাদেশের নয় তাই তাদের এই দেশের মাটির প্রতিও তাদের কোন দরদ নেই।

তিনি আরো বলেন, যেহেতু আমাদের মাটির টান আছে, এজন্য আমাদের একটা কর্তব্যবোধ আছে। আরেকটা জিনিস, দেশকে জানা। অনেকেই ক্ষমতায় এসেছে, কিন্তু এ দেশ সম্পর্কে জানে না। কারণ যাদের জন্ম বাংলাদেশের মাটিতে হয়নি, তারা জানবে কোথা থেকে। তাদের জানার কোন ইচ্ছাও তাই নেই। তারা দেশকে ভালোবাসতে পারেনি, দেশের মানুষকেও না। তারা নিজেদের স্বার্থ
নিয়ে সবসময় ব্যস্ত থেকেছে।

শেখ হাসিনা আরো বলেন, সুষ্ঠু পরিকল্পনার মাধ্যমে সুনির্দিষ্ট দিকদর্শন থেকে যদি আমরা কাজ করি, তাহলে অবশ্যই একটা দেশ উন্নত হওয়া সম্ভব। আসলে ৭৫-এর পর যারা ক্ষমতায় এসেছে তারা এভাবে চিন্তা করেনি। তাদের ক্ষমতাটা ছিল ভোগের বস্তু। ক্ষমতার লোভে পরেই তারা জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান সহ তার পরিবারের সবাইকে খুন করেছে। শুধু ভাগ্যের কারনে আমরা ২ বোন বেঁচে গেছি।

তিনি আরো বলেন, আমরা মনে করি ক্ষমতা মানে কাজ করার সুযোগ, জনসেবা করার সুযোগ, আমরা জনগণের সেবক। সেবক হিসেবে কাজ করি। সেটা হচ্ছে আমাদের লক্ষ্য। আমাদের আর কেউ পেছনে টানতে পারবে না, আমরা এগিয়ে যাবো। আমাদের দমাতে পারে এমন কেউ আর নেই। আমাদের যতোই টেনে ধরুক তারাই মুখ থুবরে পড়বে। আমরা এগিয়ে যাবোই।

এখন আর কেউ ওই দাতা দাতা বলে আমাদের ভিক্ষে দিতে আসে না। উন্নয়ন সহযোগী বলে আরো কত উন্নয়ন করবো সে সহযোগিতা করতে আসে। কারণ কারো কাছে আমরা ভিক্ষে চাই না। আমাদের কারোর ভিক্ষার প্রয়োজন নেই। আমরা নিজ অর্থায়নে পদ্মা সেতু করতে পারি।

বৃহস্পতিবার সকালে পোপ ফ্রান্সিসের সঙ্গে সাক্ষাৎ করবেন শেখ হাসিনা। এরপর দুপুরে ট্রেনে করে রোম থেকে মিলান যাবেন। শুক্রবার স্থানীয় সময় দুপুর ১টা ৪০মিনিটে আমিরাত এয়ারলাইন্সের ‘ইকে-২০৬’ ফ্লাইটে মিলান মেলপেনসা আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে ঢাকার উদ্দেশে রওনা হবেন তিনি।

শনিবার, ৮ ফেব্রুয়ারি সকাল ৮টা ১০ মিনিটে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পৌঁছানোর কথা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার।

প্রধানমন্ত্রীর প্রতিটি সফর দেশের জন্য সুবার্তা বয়ে আনে। যে কোন দেশে শেখ হাসিনার সফর মানেই দেশের জন্য গুরুত্বপূর্ণ কিছু বয়ে নিয়ে আসা। দলের সবাই চেয়ে আছে প্রধানমন্ত্রী দেশের জন্য এবার কি উপহার নিয়ে আসেন।

খবরটি শেয়ার করুন..

Comments are closed.




© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি ।
নির্মান ও ডিজাইন: সুশান্ত কুমার মোবাইল: 01748962840