সংবাদ শিরোনাম:
দ্বিতীয়বারের মতো ঢাকার সেরা অফিসার ইনচার্জ ফারুক হোসেন ‘ভোট জালিয়াতি’ তদন্তের নির্দেশ চট্টগ্রামে গলায় ছুরি ধরে গৃহবধূকে গণধর্ষণ, ধর্ষকদের বাঁচাতে কাউন্সিলরপ্রার্থী বেলালের দৌড়ঝাঁপ নারী নির্যাতন মামলায় বিজয়নগর উপজেলা ছাত্রলীগের বিবাহিত সভাপতি মাহবুব হোসেন কারাগারে দুই নবজাতকের লাশ নিয়ে হাইকোর্টে বাবা কনস্টেবলকে মারধর, শ্রমিকলীগ নেতার স্ত্রী কারাগারে অবক্ষয় থেকে তরুণ সমাজকে রক্ষা করতে চলচ্চিত্রের ব্যাপক ভূমিকা রয়েছে- তথ্যমন্ত্রী পরিবার পরিকল্পনা অধিদপ্তর নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি 2020 কর কমিশনারের কার্যালয়ে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি ২০২০ ৯ দিনে করোনা জয়ী তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ
চরমোনাই পন্থীরা কি কওমী মাদরাসা ছাত্র- শিক্ষক?

চরমোনাই পন্থীরা কি কওমী মাদরাসা ছাত্র- শিক্ষক?

ইশা ছাত্র আন্দোলন কওমী মাদ্রাসা চরমোনাই
ইশা ছাত্র আন্দোলন কওমী মাদ্রাসা চরমোনাই

ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ যারা করে তাদের পোশাক দেখে অনেকেই চোখ বন্ধ করে বলে দেয় এদের সবাই কওমী মাদরাসার ছাত্র শিক্ষক। কয়েক দিন আগে চট্টগ্রাম রাহাত্তারপুলে একজন ভদ্র লোক পাঞ্জাবি পরিহিত এক ব্যক্তিকে জিজ্ঞাসা করতেছে হুজুর সিএনজির ড্রাইবার কোথায়? হুজুর সম্মোধন করা ব্যক্তি বলল, আমিই সিএনজির ড্রাইবার।

ভদ্রলোকটি অবাক হয়েছে আদৌ তিনি ড্রাইবার কিনা।ঐ ড্রাইবার কোন হুজুর নয়। তিনি চরমোনাই পীর সাহেব এর মুরিদ। চট্টগ্রাম, ঢাকাসহ বিভিন্ন সিটিতে হাজারো সিএনজি, রিক্সাসহ বিভিন্ন গাড়ির ড্রাইবার পাঞ্জাবি পাগড়ি পরিহিত। এরা ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ কোন দায়িত্বশীল নয় বরং সাধারণ সমর্থক। যে কোন সমর্থক বা অনুসারী নিজ পরিাবার ও নিজের হালাল উপার্জনের জন্য হয়তো কোন পেশায় নিয়োজিত আছেন। পেশাটা শুধু সৎ কি না দেখার বিষয় যদিও। চরমোনাই অনুসারীরা ইসলামিক বিধান মেনে শরীয়তসম্মত পোষাক পরে।

ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের ছাত্র সংগঠন ইশা ছাত্র আন্দোলনে ত্রিধারার ছাত্রদের অংশগ্রহণ থাকলেও বাহ্যিক দৃষ্টিতে মনে হবে সবাই কওমী মাদরাসার ছাত্র। ইশা ছাত্র আন্দোলন করে কলেজে ইউনিভার্সিটিতে যায় জুব্বা, পাঞ্জাবি, পাগড়ি পরে। এগুলো ইসলামিক পোষাক এই সাদৃশ্যতার সাথে কওমী মাদ্রাসার অন্তর্ভূক্তির কোন বিষয় নেই। কওমী মাদ্রাসা শুধু নয় যে কেউ প্রকৃত মুসলিম হিসেবে সুন্নতী পোশাক পরিধান করতে পারে।

প্রাচ্যের অক্সফোর্ড খ্যাত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ইশা ছাত্র আন্দোলনের দায়িত্বশীলদের দেখলে মনে হয় বাংলাদেশ শ্রেষ্ট বিদ্যাপীঠ দারুল উলুম মঈনুল ইসলাম হাটহাজারি মাদরাসার ছাত্র। ডাকসু নির্বাচনে প্রচারণাকালে তাদের দেখে মিডিয়া মন্তব্য করেছিল মাদরাসার ছাত্ররা ঢাবিতে কি করছে? জনমহলে এটি আলোচনাও হয়। পরে তারা বোঝতে পারে এরা মাদ্রাসার ছাত্র নয়। এরা মেধাবী। এরা আল্লাহকে ভালোবেসে তার ধর্মের বিধান মেনে নিজেদের সজ্জ্বিত করেছেন।

খুঁজ নিয়ে দেখে, কেউ অনার্স করে ইংরেজি নিয়ে,কেউ হিসাব বিজ্ঞান, কেউ রাষ্টবিজ্ঞান নিয়ে। এক কথায় চরমোনাই পীর সাহেব এর হাতে হাত লাগলে সবাই যেন কওমী মাদরাসার ছাত্র শিক্ষকের ন্যায় হয়ে যায়। ইসলামী আন্দোলন করলে পাঞ্জাবি পরতে হবে এমন কোন বাধ্যবাধকতা নেই। তবে আমিরের বয়ান আর দলীয় নেতাদের আচরণ দেখে তৃণমূলের নেতা কর্মী, সদস্য ও সমর্থকরাও সুন্নাতি পোশাক ও দাড়ি রাখে।

ইসলামী আন্দোলনের সকল অঙ্গ সংগঠনের দায়িত্বশীলদের মাঝে সুন্নাতি পোশাক দেখে অনেকে মন্তব্য করে বসে তাদের দলে সবাই কওমী মাদরাসার ছাত্র শিক্ষক।ইসলামী আন্দোলনের জনপ্রিয়তা, গ্রহণযোগ্যতা ও কর্মী জ্যামিতিকহারে বাড়ছে। দিন যাচ্ছে বিভিন্ন মতাদর্শের লোকজন কুসঙ্গ ত্যাগ করে আল্লাহর স্বমহিমা ধারন করে যারা পথ চলছে, যারা সবসময় সত্যের পক্ষে, যারা আদর্শিক তাদের সাথে বুক মেলাচ্ছে।

ক্ষমতার লোভে নিজেদের আদর্শকে জলাজঞ্জলি না দিয়ে দলটি সসর্বমহলে প্রসংশিত হচ্ছে। দলের আমির পীর সাহেব চরমোনাই এখন সবচেয়ে জনপ্রিয় ব্যক্তি।

আওয়ামী লীগ বিএনপির পরে সবচেয়ে বৃহৎ দলে পরিণত হয়েছে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ। গণমুখী রাজনীতি, ইসলাম, দেশ, মানবতা ও স্বাধীনতার কল্যাণে রাজনীতি করছে দলটি। সাম্প্রাতিক আবরার হত্যা, ভারতের সাথে চুক্তি ও ভোলা ট্যাজেডি নিয়ে সবচেয়ে বেশি আন্দোলন করেছে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ।

দলের নায়েবে আমির মুফতি ফয়জুল করিম এর বক্তব্য গুলো সবাইকে নাড়া দেয়।দলমত নির্বিশেষে সবাই এখন প্রসংশায় পপঞ্চমুখ। ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ এর আমির পীর সাহেব চরমোনাইর আদর্শিক দৃঢ়তার কারণে দেশব্যাপি মজবুত হচ্ছে তাদের সংগঠন। অদূরভবিষ্যতে এই দলটি এদেশের রাজনীতি বড় ফ্যাক্টর হয়ে দাঁড়াবে।


লেখকঃ নুর আহমদ সিদ্দিকী, তিনি একজন সাদ হাস্যজ্জ্বল ব্যক্তি। এই প্রানবন্ত কলামিষ্ট সবসময় ইসলামের আদর্শে লিখে যাচ্ছেন। তার কবিতা, গল্প কিংবা কলাম সবটা জুড়ে থাকে সততা আর ন্যায়ের ছোঁয়া। পেশায় শিক্ষকতা করেন। দৈনিক ৭১ এ তার লেখা নিয়মিত প্রকাশ হয়। সে দৈনিক ৭১ এর নিয়মিত কলামিষ্ট।

খবরটি শেয়ার করুন..

Comments are closed.




© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি ।
নির্মান ও ডিজাইন: সুশান্ত কুমার মোবাইল: 01748962840