সংবাদ শিরোনাম:
টাঙ্গাইলে একইসাথে দুই করোনা যোদ্ধার জন্মদিন উদযাপন এমপি মমতা হেনা লাভলীর টাঙ্গাইলে বন্যার্তদের মাঝে ত্রান বিতরণ সার্ক মানবাধিকার ফাউন্ডেশন, টাঙ্গাইল জেলা শাখার নতুন কমিটি এমপি হিরোর বিরুদ্ধে সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা লাগানোর অপচেষ্টার অভিযোগ টাঙ্গাইলে ছাত্রলীগ কর্তৃক বৃক্ষরোপণ কর্মসূচী পালন মানিক শিকদারের ব্যবস্থাপনায় টাঙ্গাইলে জাতীয় শোক দিবস পালন টাঙ্গাইলের পৌর মেয়র জামিলুর রহমানে মিরনের ব্যবস্থাপনায় টাঙ্গাইলে শোক দিবস পালন প্রবাসে থেকেও থেমে নেই টাঙ্গাইলের মুজাহিদুল ইসলাম শিপন মেয়র লোকমানের আত্মস্বীকৃত খুনি এমপি সাহেবের প্রোগ্রামে সক্রিয় জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি নিজেই প্রধান অতিথী, সভাপতিত্ব করবেন কে?
জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি নিজেই প্রধান অতিথী, সভাপতিত্ব করবেন কে?

জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি নিজেই প্রধান অতিথী, সভাপতিত্ব করবেন কে?

নজরুল ইসলাম হিরুর আয়োজন
নজরুল ইসলাম হিরুর আয়োজন

গত ৫ আগস্ট শেখ কামালের জন্মদিন উপলক্ষে, নরসিংদী জেলা আওয়ামী লীগ কার্যালয় প্রাঙ্গনে দোয়া ও মিলাদ মাহফিলের আয়োজন করে শহর আওয়ামী লীগ ও অঙ্গ সহযোগী সংগঠন।

ওইদিনই মাসব্যাপী কর্মসূচির ঘোষণা দেন, যা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আমজাদ হোসেন বাচ্চু তার নিজ ফেসবুক ওয়ালে এ কর্মসূচির বিবরণ দিয়ে একটি পোস্ট করে। পরবর্তীতে মাস ব্যাপী ধারাবাহিক কর্মসূচির প্রেক্ষিতে বঙ্গমাতার জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে দলীয় কার্যালয়ে শহর আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ ও অঙ্গসংগঠনের নেতৃবৃন্দ উপস্থিতিতে, শহর আওয়ামী লীগের সভাপতি পৌর মেয়র কামরুজ্জামান কামরুল সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হয়।

এরই মধ্যে চলছে ১৫ই আগস্ট কে ঘিরে শহর আওয়ামীলীগের নানা আয়োজন। জাতীয় শোক দিবসে শহর আওয়ামীলীগের উদ্যোগে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন, বর্ষীয়ান রাজনীতিবিদ, নরসিংদীর জেলা আওয়ামীলীগের সংগ্রামী সাধারন সম্পাদক, জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান, আলহাজ্ব আব্দুল মতিন ভূঁইয়া। সভাপতিত্ব করবেন শহর শাখার সভাপতি, কামরুজ্জামান কামরুল। অনুষ্ঠিত হবে দোয়া মাহফিল, জাতীয় দলীয় পতাকা অর্ধনিমিত রেখে উত্তোলন করা হবে কালো পতাকা।

যখন সমগ্র শহরজুড়ে অনুষ্ঠানের পোস্টার লিফলেট মাইকিং ছড়িয়ে পড়েছে, এমতাবস্থায়, গতকাল বিকেলে জেলা আওয়ামীলীগের বহিষ্কৃত নেতা কাইয়ুম সরকার, তার নিজ ফেসবুক আইডি থেকে একটি পোস্ট করে। ওইখানে বিভিন্ন কর্মসূচির কথা উল্লেখ করে, লিফলেট প্রকাশ করে।

তিনি সেখানে উল্লেখ করেন জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি নিজেই প্রধান অতিথী। এতে জনমনে নানাবিধ প্রশ্ন দেখা দেয়। গুরুত্বপূর্ণ এমন একটি অনুষ্ঠানে জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি যদি প্রধান অতিথী হোন তবে সভাপতিত্ব করবেন কে?

যেসব অঙ্গ সংগঠনের নাম উল্লেখ করা হয়েছে সেই সকল অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীর উপস্থিতিতে বিগত ৫ ই আগস্ট, তাদের মতামত নিয়ে নরসিংদী শহর আওয়ামীলীগ অনুষ্ঠান ঘোষণা করেছে।

জাতির জনকের শাহাদাত বার্ষিকী উপলক্ষে আওয়ামীলীগের ভেতরে এমন কোন্দল দেখে মর্মাহত হয়েছেন অনেকেই। নরসিংদী জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক জানান “মূলত নরসিংদী আওয়ামীলীগের সদরের সকল অনুষ্ঠান আয়োজন করে শহর আওয়ামীলীগ, তার সাথে সম্পৃক্ত থাকে জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব আব্দুল মতিন ভুঁইয়া। দলীয় এমপি ও জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি দলীয় কার্যক্রমে নরসিংদীতে বরাবরই নিষ্ক্রিয় ছিলেন। এমনকি পবিত্র ঈদের দিনও নিজের আসনের জনগণের সাথে নামাজ পড়েননি। এমন বহু জাতীয় অনুষ্ঠানে উনাকে ডেকেও উপস্থিত করা যায়নি। অতিথী রাখলেও তিনি উপস্থিত হোননি।”

তিনি আরও বলেন “ নরসিংদীর অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ প্রোগ্রামটা ছিল, নরসিংদীর জনপ্রিয় মেয়র লোকমান হোসেনের স্মরণ সভা। সেখানে প্রধান অতিথি ছিল বাংলাদেশ সরকারের শিল্প মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বপ্রাপ্ত মন্ত্রী নুরুল মজিদ হুমায়ুন এমপি। ১ নং বিশেষ অতিথি ছিল নজরুল ইসলাম হিরু এমপি কিন্তু উনি নরসিংদীতে থেকেও কোন এক অজানা কারণে উপস্থিত হোননি।তাছাড়া ওই অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিল জহিরুল হক ভূইয়া মোহন এমপি, আনোয়ার আশরাফ খান দিলীপ এমপি। এখন কাউকে অনুষ্ঠানের অতিথি করলে যদি উপস্থিত না হয় তাকে অতিথী করাটা পরবর্তীতে কতোটা সমীচীন হবে?”

দলীয় একাধিক নেতাকর্মী ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন “শহর আওয়ামীলীগ লীগ যা করেছে ঠিকই করেছে। রাজপথের লড়াকু সৈনিক, দুর্দিনের শেখ হাসিনার নির্দেশনার লড়াই-সংগ্রাম কারী নেতা, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক, জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আলহাজ্ব মতিন ভূঁইয়া কে অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি করেছে। একই স্থানে অনুষ্ঠানের ঘোষণা দেওয়া নোংরা রাজনীতির পরিচয়। যারা এগুলো করছে বিগত দিনেও করেছে, কিন্তু মূল ধারার রাজনীতি কে বাধাগ্রস্ত করতে পারেনি। আশাকরি অদূর ভবিষ্যতেও পারবে না কারন মতিন ভুঁইয়া, কামরুল তৃণমূল নেতাকর্মীদের সমন্বয় করে মূল্যায়ন করে দল পরিচালনা করেন।”

জাতির পিতার শাহাদত বার্ষিকীতে এরকম পাল্টাপাল্টি প্রোগ্রাম হাতে নেয়ায় বিরোধীদলের নেতাকর্মীদের কাছে হাসির পাত্রে পরিণত হচ্ছে নরসিংদীর আওয়ামী নের্তৃবৃন্দ। তাছাড়া বঙ্গবন্ধুর শততম জন্মবার্ষিকীতেও এমনই পাল্টাপাল্টি অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছিল নরসিংদীর রাজনীতিবদগণ। এমপি হিরোর প্যান্ডেলে দলীয় নেতা -কর্মীদের শূন্যতা চোখে পরে যার ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়েছিল। নৌকা প্রতীকের বিরুদ্ধে নির্বাচন করে জেলা আওয়ামী লীগ থেকে বহিস্কৃত কাইয়ুম সেই আয়োজনের গুরু দায়িত্ব পালন করেছিলেন।

খবরটি শেয়ার করুন..

Comments are closed.




© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি ।
নির্মান ও ডিজাইন: সুশান্ত কুমার মোবাইল: 01748962840