সংবাদ শিরোনাম:
বিডি ক্লিনের প্রধান সমন্বয়কের বিরুদ্ধে প্রতারণার অভিযোগ ঈদের শুভেচ্ছা জানালেন বাংলাদেশ ছাত্রলীগ এর সাবেক সহ সভাপতি মশিউর রহমান শরিফ নরসিংদী মডেল থানার নতুন ওসি বিপ্লব কুমার দত্ত চৌধুরী টাঙ্গাইল পৌর ভবন এখন করোনার হট স্পট সাহেদের ৫০ দিনের রিমান্ড আবেদন শাহিন স্কুলের কর্তৃপক্ষ তালা ঝুলিয়ে পালালেন দলীয় নেতা কর্মীরা মিথ্যার জাহাজ হিসেবে আখ্যায়িত করলেন কেন্দ্রীয় তাঁতী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদককে ক্লিন টাঙ্গাইলের উদ্যোগে চতুর্থবারের মত প্রতিবন্ধীদের মাঝে উপহারসামগ্রী বিতরণ মিথ্যার আশ্রয় নিয়ে তাঁতী লীগের মন্তাজউদ্দীন ভূঁইয়ার কর্মসূচি ব্যারিষ্টার ছেলের পিতা টাঙ্গাইল পৌর প্যানেল মেয়র সাইফুজ্জামান সোহেল
টাঙ্গাইলের ঘাটাইলে ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে আবার-ও অভিযোগ

টাঙ্গাইলের ঘাটাইলে ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে আবার-ও অভিযোগ

টাঙ্গাইলের ঘাটাইলে ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে আবার-ও অভিযোগ
টাঙ্গাইলের ঘাটাইলে ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে আবার-ও অভিযোগ

টাঙ্গাইল জেলার ঘাটাইল থানার ১০ নং রসুলপুর ইউনিয়নের স্বতন্ত্র প্রতীকে নির্বাচিত চেয়ারম্যান এমদাদুল হক সরকারের বিরুদ্ধে আবার-ও অভিযোগ এনেছেন তার এলাকার এক ভূক্তভোগী।

উক্ত ভূক্তভোগীর ঠিকানা নাম মো: মোফাজ্জল হোসেন, পিতা: আ: ছালাম, গ্রাম: রসুল পুর (লালমাটি), থানা: ঘাটাইল, জেলা: টাঙ্গাইল।

তিনি গত ৩রা অক্টোবর টাঙ্গাইল জেলা পুলিশ সুপারের নিকট এমদাদুল হক সরকারের বিরুদ্ধে একাধিক বিষয়ে অভিযোগ আরোপ করে জান ও মালের নিরাপত্তা চেয়ে আবেদন করেন।

উক্ত আবেদনে উল্লেখ করেন বর্তমান ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান এলাকায় ক্যাডার বাহিনীর মাধ্যমে তান্ডব চালাচ্ছেন। চাঁদাবাজি, নেশা সামগ্রী বিক্রয়, সন্ত্রসী কার্যকলাপ ছাড়াও সকল ধরণের অপরাধ জগতের এক আধিপত্য বিস্তারের নেশায় পেয়ে বসেছে চেয়ারম্যান এমদাদুল হক সরকারকে।

এমদাদুল হক সরকারের ক্যাডার বাহিনীতে দাঙ্গাবাজ, চাঁদাবাজ, নেশা খোর, খুনি ও সকল ধরণের অপরাধ প্রবনতামুখী মারাত্মক ধরণের লোকজন রয়েছে।

মোফাজ্জল হোসেন উক্ত আবেদনে উল্লেখ করেন তিনি উক্ত চেয়ারম্যান এর ভাই মো: জাহাঙ্গীর আলম এর সাথে ব্যবসায়ে যুক্ত ছিলেন। ব্যবসায়ীক কারনে জাহাঙ্গীর আলম এর নিকট তিনি ১৫৬০০০ (এক লক্ষ ছাপ্পান্ন হাজার) টাকা পান।উক্ত টাকা নিয়ে উভয় অংশীদার এর মনোমালিন্য হয়।

উক্ত টাকার জন্য মোফাজ্জল হোসেন চাপ প্রয়োগ করলে বিষয়টা চেয়ারম্যান পর্যন্ত গড়ায়। চেয়ারম্যান উক্ত সমস্যার সমাধান না করে তার ভাইয়ের পক্ষালম্বন করে হুমকী দেন। তিনি বলেন কোন টাকা দাবী করলে, পরিবারের লোকজন সহ খুন করে নদীতে ভাসিয়ে দিবেন। নির্বাচিত জনিপ্রতিনিধির থেকে এমন হুমকী পেয়ে পরিবার সহ তিনি অনিরাপত্তায় ভুগছেন।

এছাড়াও মো: মোফাজ্জল হোসেন চেকের মাধ্যমে ৮৯১৫০০/= (আট লক্ষ একানব্বই হাজার পাঁচশত) টাকা এক ব্যক্তির নিকট প্রাপ্য হোন। উক্ত টাকা অনাদায়ে আদায়ের জন্য তিনি মামলা দায়ের করেন যা টাঙ্গাইল জেলা জজ কোর্টে চলমান।

এমতাবস্থায় এমদাদুল হক সরকার সেই ব্যক্তির নিকট থেকে পারিতোষিক গ্রহণের মাধ্যমে বিষয়টা মেটানোর উদ্যোগ নিয়েছেন বলে আবেদনে উল্লেখ করা হয়।

এমদাদুল হক সরকার অল্প কিছু টাকার বিনিময়ে উক্ত মামলাটি তুলে নেয়ার জন্য সুপারিশ করলে মো: মোফাজ্জল হোসেন মেনে নেয় নি। চেয়ারম্যান এতে আর-ও ক্ষিপ্ত হোন এবং পরিবার বর্গসহ দেথে নেয়ার হুমকী দেন।

যে ঘটনার ধারাবাহিকতায় গত ৩০ শে সেপ্টম্বর রসুলপুরের আমতলার গর্জনাপাড়া নামক এলাকায় চেয়ারম্যানের সন্ত্রাসী বাহিনী কর্তৃক হামলার শিকার হোন মো: মোফাজ্জল হোসেন।

মোফাজ্জল হোসেন তাবী করেন আমাকে খুন করার জন্য তারা আক্রমণ করলে এলাকাবাসীর সহযোগিতায় আমি উদ্ধার হই।

তিনি বলেন তিনি বর্তমানে বাড়ি ছাড়া আছেন। তার নিজ এলাকা বা বাড়িতে তিনি এবং তার পরিবারবর্গের কেউ নিরাপদ নন এমতাবস্থায় প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য পুলিশ সুপারের নিকট তিনি আবেদন করেন।


মোফাজ্জল হোসেন তার নিজ এলাকার ইটভাটার জন্য মাটি কয় এবং বিক্রেতা হিসেবে ব্যবসা করেন। মাটি কাটার বেকু মেশিন দিয়ে বিভিন্ন এলাকায় পুকুর অথবা জমি খনন করে উক্ত মাটি ইটের ভাটায় সরবরাহ করে ব্যবসায় কাজে তিনি যুক্ত ছিলেন।

এর আগেও চেয়ারম্যান সাহেবের নিজ ওয়ার্ড এর মেম্বার হালিম মেম্বার এর স্ত্রী ও ভাই কর্তৃক মামলা দায়ের হয়েছে। হালিম মেম্বার ও তার ছেলের হাত ভেঙ্গে দিয়েছে চেয়ারম্যান এর ক্যাডার বাহিনী। হালিম মেম্বার এর স্ত্রীর মাথায় কুপানোর ফলে ২৬ টি সেলাই দিতে হয়েছে। এছাড়াও উক্ত ঘটনায় আর-ও ২-৩ জন আহত হয়ে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

এলাকবাসীর মধ্যে চেয়ারম্যান সাহেবের উপর তীব্র অসন্তোষ প্রকাশ করতে দেখা যায় কিন্তু প্রকাশ্যে কেউ কিছু বলতে রাজি নন। সবাই আতঙ্কের মধ্যে দিন কাটাচ্ছেন। উক্ত মামলাগুলোর তেমন অগ্রগতী দেখা যায় নি। বাদী গণ-ই অনিরাপত্তার মধ্যে আতঙ্কে দিন কাটাচ্ছেন।

উক্ত প্রতিবেদক চেয়ারম্যান সাহেবের সাথে যোগাযোগ করতে না পারায় চেয়ারম্যান সাহেবের মতামত নেয়া সম্ভব হয়নি।

খবরটি শেয়ার করুন..

Comments are closed.




© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি ।
নির্মান ও ডিজাইন: সুশান্ত কুমার মোবাইল: 01748962840