সংবাদ শিরোনাম:
টাঙ্গাইলে একইসাথে দুই করোনা যোদ্ধার জন্মদিন উদযাপন এমপি মমতা হেনা লাভলীর টাঙ্গাইলে বন্যার্তদের মাঝে ত্রান বিতরণ সার্ক মানবাধিকার ফাউন্ডেশন, টাঙ্গাইল জেলা শাখার নতুন কমিটি এমপি হিরোর বিরুদ্ধে সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা লাগানোর অপচেষ্টার অভিযোগ টাঙ্গাইলে ছাত্রলীগ কর্তৃক বৃক্ষরোপণ কর্মসূচী পালন মানিক শিকদারের ব্যবস্থাপনায় টাঙ্গাইলে জাতীয় শোক দিবস পালন টাঙ্গাইলের পৌর মেয়র জামিলুর রহমানে মিরনের ব্যবস্থাপনায় টাঙ্গাইলে শোক দিবস পালন প্রবাসে থেকেও থেমে নেই টাঙ্গাইলের মুজাহিদুল ইসলাম শিপন মেয়র লোকমানের আত্মস্বীকৃত খুনি এমপি সাহেবের প্রোগ্রামে সক্রিয় জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি নিজেই প্রধান অতিথী, সভাপতিত্ব করবেন কে?
ঢাকা দক্ষিণ ৯ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মমিনুলকে অপসারন: পালিয়ে আছেন সিঙ্গাপুরে

ঢাকা দক্ষিণ ৯ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মমিনুলকে অপসারন: পালিয়ে আছেন সিঙ্গাপুরে

মমিনুল হক সাইদ কাউন্সির ঢাকা দক্ষিন ৯ নং ওয়ার্ড ক্যাসিনো
মমিনুল হক সাইদ কাউন্সির ঢাকা দক্ষিন ৯ নং ওয়ার্ড ক্যাসিনো

ক্যাসিনো বাণিজ্যসহ নানা অভিযোগ ওঠায় অবশেষে কাউন্সিলর পদ হারালেন ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের ৯ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর এ কে এম মমিনুল হক সাঈদ। ক্ষমতাধর কাউন্সিলরকে অবশেষে পদ হারাতে হল। এই বিষয়ে সংবাদ উঠে এসেছে দেশ ও দেশের সংবাদ মাধ্যমে।

গত বৃহস্পতিবার মতিঝিল এলাকার এই কাউন্সিলরকে অপসারণ করে আদেশ জারি করেছে স্থানীয় সরকার বিভাগ। আদেশে স্পষ্টভাবে বলা হয়, ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন থেকে অভিযোগ পাওয়া গেছে, মমিনুল হক যুক্তিসঙ্গত কারণ ছাড়া করপোরেশনের অনুষ্ঠিত তিনবারে ১৮টি সভার মধ্যে ১৩টি সভায় অনুপস্থিত ছিলেন।

প্রথম থেকে তৃতীয় সভায় একনাগাড়ে তিনবার, সপ্তম থেকে দশম সভায় চারবার ও ১২ থেকে ১৭তম সভায় ছয়বার অনুপস্থিত ছিলেন। সর্ব মোট ১৮ টি সভায় সে ১৩ টি সভায়ই অনুপস্থিত।

নয় নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর সাঈদ স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের অনুমোদন ছাড়া বিদেশে গমন ও অবস্থান করেছেন। এই বিষয়ে ইতিপূর্বে আত্মপক্ষ সমর্থনে জবাব দেওয়ার জন্য তাকে কারণ দর্শানোর নোটিশ দেওয়া হয়েছিল।শোকজ লেটারের বীপরিতে তিনি আত্মপক্ষ সমর্থনে যৌক্তিক কোন তথ্য-প্রমান বা কারন উপস্থাপন করতে পারেননি। যা তারা প্রতীয়মান হয় তিনি নির্দোষ।

অভিযোগগুলো সরেজমিন তদন্তের জন্য সরকার একজন তদন্ত কর্মকর্তা নিয়োজিত করে। সেই তদন্ত প্রতিবেদনে অভিযোগগুলো প্রমাণিত হয়েছে বলে আদেশে উল্লেখ করা হয়েছে। তদন্তু প্রতিবেদন জমা দেয়া হয়েছে তাতে দেখা যায় তার বিরুদ্ধে আনীত সকল অভিযোগ শতভাগ সত্য।

স্থানীয় সরকার বা সিটি করপোরেশন আইন অনুযায়ী তার অপরাধ এর শাস্তি হিসেবে কাউন্সিলর পদ থেকে অপসারণযোগ্য অপরাধ হিসেবে গণ্য করা যায়। এতে বলা হয়, ২০০৯ সালের আইনের ধারা ১৩ এর উপ-ধারা (২) অনুযায়ী মমিনুল হককে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের ৯ নম্বর সাধারণ ওয়ার্ডের কাউন্সিলর পদ থেকে অপসারণ করা হয়েছে।

বর্তমানে ২০০৯ সালের স্থানীয় সরকার আইন বলবৎ রয়েছে। যা মেনেই তার বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিয়েছে স্থানীয় সরকার।

সকলেই অবগত রয়েছেন ফকিরাপুলের ওয়ান্ডারার্স ক্লাবে নিয়মিত ক্যাসিনো, জুয়া, মাদকের আসর বসতো, যা চালাতেন কাউন্সিলর মমিনুল। র‌্যাবের অভিযান পরিচালনা হলেই মমিনুল হক নিজেকে বাঁচাতে সিঙ্গাপুর পালিয়ে যান।

বাংলাদেশে ক্যাসিনো একেবারেই অবৈধ বলেছেন বাংলাদেশের অর্থ মন্ত্রী। যেই হোন না কেন কেউই ছাড় পাবে না। মমিনুল হক তার অবৈধ অর্থ দিয়ে সিঙ্গাপুরে বাড়ি কিনেছেন বলে ঘনিষ্ঠ মাধ্যম থেকে জানা গেছে। তাছাড়াও তার শত শত কোটি টাকার সম্পত্তি রয়েছে লন্ডন ও অষ্ট্রেলিয়ায়। সে আর হয়তো দেশে ফিরবে না, এমনটা ভেবেই আত্ম গোপনে রয়েছেন।

অবৈধভাবে ক্যাসিনো পরিচালনায় ইতিমধ্যে যুবলীগের ঢাকা মহানগর দক্ষিণের সভাপতি ইসমাইল চৌধুরী সম্রাট ও সাংগঠনিক সম্পাদক খালেদ ভূঁইয়াকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। যুবলীগের পদ থেকেও তাদের বহিষ্কার করা হয়েছে। অনেকেই এই সুদ্ধি অভিযানের কারনে আতঙ্কে রয়েছেন। সরকারের উপরের মহলের অনেকেই বিদেশে যেতে পারছেন না। তাদের উপর নিষেধাজ্ঞা জারী রয়েছে।

প্রধানমন্ত্রী ছাত্র লীগের পর যুবলীগের সুদ্ধি অভিযানে হাত দিলেই একের পর এক রহস্য উন্মোচিত হতে থাকে। যেখানে সরকারের প্রাক্তন ও বর্তমান মন্ত্রী পরিষদ ও হুইপের নাম-ও জড়িয়ে আসে। সরকার জিরো টোলারেন্স নীতি অবলম্বন করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিচ্ছেন।

কোন ক্ষমতাধর রাগব বোয়ালকেই ছাড় দেয়নি সরকার। ঢাকা দক্ষিনের ক্ষমতার ওয়ার্ড কাউন্সিলর কে অপসারণের মাধ্যমে খুব শীঘ্রই ৯ নং ওয়ার্ডে উপ নির্বাচন দেয়ার প্রয়োজনীয়াও দেখা দিল।

ঢাকা দক্ষিন সিটি কর্পোরেশনে সম্ভাব্য প্রার্থী অনুমানে যোগাযোগ করা হলে কতিপয় যোগ্য লোকজন বলেন মমিনুল একজন শীর্ষ স্থানীয় সন্ত্রাসী। তার অনেক ক্যাডার রয়েছে। মমিনুলের অবর্তমানে তার আসনে কেউ প্রার্থীতা করবে কি না এই ব্যাপারেও সন্দেহ পোষন করেন অনেকে। তবে কেউ কেউ বলেন প্রধানমন্ত্রী আশ্বস্ত করলে এবং চাইলে অবশ্যই ঝুঁকি নিয়ে এলাকাবাসীর জন্য নির্বাচনে অংশ নিবেন।

খবরটি শেয়ার করুন..

Comments are closed.




© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি ।
নির্মান ও ডিজাইন: সুশান্ত কুমার মোবাইল: 01748962840