সংবাদ শিরোনাম:
টাঙ্গাইলে একইসাথে দুই করোনা যোদ্ধার জন্মদিন উদযাপন এমপি মমতা হেনা লাভলীর টাঙ্গাইলে বন্যার্তদের মাঝে ত্রান বিতরণ সার্ক মানবাধিকার ফাউন্ডেশন, টাঙ্গাইল জেলা শাখার নতুন কমিটি এমপি হিরোর বিরুদ্ধে সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা লাগানোর অপচেষ্টার অভিযোগ টাঙ্গাইলে ছাত্রলীগ কর্তৃক বৃক্ষরোপণ কর্মসূচী পালন মানিক শিকদারের ব্যবস্থাপনায় টাঙ্গাইলে জাতীয় শোক দিবস পালন টাঙ্গাইলের পৌর মেয়র জামিলুর রহমানে মিরনের ব্যবস্থাপনায় টাঙ্গাইলে শোক দিবস পালন প্রবাসে থেকেও থেমে নেই টাঙ্গাইলের মুজাহিদুল ইসলাম শিপন মেয়র লোকমানের আত্মস্বীকৃত খুনি এমপি সাহেবের প্রোগ্রামে সক্রিয় জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি নিজেই প্রধান অতিথী, সভাপতিত্ব করবেন কে?
দলীয় সংকীর্ণতা নয় চাই স্বাধীনতা সুরক্ষা: নুর আহমদ সিদ্দিকী

দলীয় সংকীর্ণতা নয় চাই স্বাধীনতা সুরক্ষা: নুর আহমদ সিদ্দিকী

নূর আহমদ সিদ্দিকী
নূর আহমদ সিদ্দিকী

আমরা এখন দলকে যেভাবে প্রাধান্য দিতে শুরু করেছি ঠিক সেভাবে দেশের স্বাধীনতা সার্বভৌমত্ব নিয়ে চিন্তিত নয়। এক সাগর রক্ত আর মা বোনের ইজ্জতের বিনিময়ে অর্জিত স্বাধীনতা আজ হুমকির মুখে। সাম্রাজ্যবাদীদের কালো থাবা ক্রমশ প্রিয় মাতৃভূমির দিকে প্রসারিত হচ্ছে কিন্তু আমরা নিজেদের স্বার্থ রক্ষায় যতটা তৎপর দেশের স্বার্থে ততটা তৎপর নই।

আমাদের দলীয় সংকীর্ণতা, শতবাধা বিভক্তি আর অনৈক্যের সুযোগ কাজে লাগাতে চাইছে প্রতিবেশি নামের আগ্রাসি শক্তি গুলো। দেশের স্বার্থ ও সার্বভৌমত্বের কথা বলতে আজ বড়ই ভয় লাগে। যদি আমাকেও আবরার হতে হয়! সেই ভয়ে সবাই চুপসে যাচ্ছে।

১০ অক্টোবর ভারতের বিএসএস আমার দেশের ৩ র‌্যাব সদস্যকে ধরে নিয়ে গিয়ে বেধড়ক পিটিয়ে রক্তাক্ত করে ফেরত দিয়েছে অথচ আমাদের সরকার কর্তৃক কোন প্রতিবাদ করা হয়নি। ভারত আমাদের বন্ধু রাষ্ট্র। ১৯৭১ সালে স্বাধীনতা যুদ্ধে তারা আমাদের সহযোগিতা করেছিল। এর নজরানা আমরা ৪৭ বছর দিয়েছি।কিন্তু বিনিময়ে আমরা পেয়েছি কাঁটাতারে ঝুলন্ত ফেলানীর রক্তাক্ত নিথর দেহ।

যে বুক ভরা আশা নিয়ে ১৯৭১ সালে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান একটি স্বাধীন সার্বভৌম দেশের স্বপ্ন দেখেছিলেন তা হয়ে উঠতে পারেনি আত্মকেন্দ্রীক মানসিকতার কারণে। ক্ষমতায় যেতে ও থাকতে স্বাধীনতা সার্বভৌমত্ব বিকিয়ে দিয়ে হলে ভারত – আমেরিকার সাথে দেশের স্বার্থ বিরুধী চুক্তি হয়েছে বার বার।

সাম্প্রতিক ভারতের সাথে চুক্তির সমালোচনা করে প্রাণ দিতে হয়েছে বুয়েটের মেধাবী ছাত্র আবরার ফাহাদকে। ১৯৪৭ সালে ভারত পাকিস্তান দ্বি জাতি তত্ত্বের ( Two nation theory) ভিত্তিতে বিভক্ত হয়েছিল।

পাকিস্তান ১৯৪৭ থেকে ১৯৭১ পর্যন্ত এই ২৪ বছরে পূর্ব পাকিস্তানের উপর অমানবিক ও বর্বর নির্যাতন চালিয়েছিল। তাদের নির্যাতন থেকে বাঁচতে প্রাণ দিয়েছে লক্ষ লক্ষ মানুষ।রক্তে রঞ্জিত হয়েছিল রাজপথ।মায়ের কোলের শিশু থেকে বয়োবৃদ্ধ মা বোনও নিস্তার পায়নি আগ্রাসি জুলুম থেকে।

১৯৫২ সালের ভাষা আন্দোলন ১৯৭১ সালের স্বাধীনতার যুদ্ধে আমাদের প্রেরণা যোগিয়েছিল। ১৯৫২ সালের ভাষা আন্দোলনে অগ্রনী ভূমিকা পালন করেছিল ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্ররা। আজ ছাত্র সমাজ তাদের পরিচয় ভুলে গিয়ে দলীয় স্বার্থ রক্ষায় হাতে তুলে নিয়ে মরণাস্ত্র। শিক্ষা প্রতিষ্টান গুলো আজ পরিণত হয়ে মিনিক্যান্টেনমেন্টে। অস্ত্রের ঝনঝনানিতে আতর্কিত ছাত্র সমাজ। হল দখল আর
আধিপত্য বিস্তার নিয়ে প্রকাশ্য চলছে অস্ত্রের মহড়া।

হতাশাগ্রস্থ হয়ে পড়েছে দেশের সচেতন নাগরিক। দেশের রাজনৈতিক দল গুলো অনৈক্যের বেড়াজালে আবদ্ধ। চর্চিত হচ্ছে নোংরা প্রতিহিংসার রাজনীতির।

ছাত্র সংগঠন গুলো ক্ষমতার দ্বন্ধে হারাচ্ছে প্রাণ। আমাদের স্বাধীনতা আমাদের অহংকার। আমাদের পতাকা শত্রুর কবল থেকে রক্ষা করাও আমাদের দায়িত্ব। স্বাধীনতা অর্জিত দায়িত্ব শেষ হয়ে যায়। অর্জিত স্বাধীনতা সুরক্ষায় চাই সদা তৎপর।

শত্রুরা উৎপেতে বসে আছে দেশটাকে ত্রাসের রাজ্যে পরিণত করতে। স্বাধীনতা পরবর্তী সরকার গুলোর ভিনদেশী তাঁবেদারি আর নতজানু পররাষ্ট্রনীতির কারণে বাংলাদেশের স্বাধীনতা সার্বভৌমত্ব আজ চরম হুমকির মুখে।

স্বাধীনতা অর্জনের জন্য যেভাবে দল মত নির্বিশেষে যুদ্ধ করেছিল আজ ২০১৯ সালে এসেও স্বাধীনতা রক্ষায় আবারো হাতে হাত রাখতে হবে। ঐক্যবদ্ধ হতে হবে শত্রুদের মোকাবিলায়। দলীয় সংকীর্ণতা পরিহার করে দেশ রক্ষায় রাজপথে সংগ্রামে অবতীর্ণ হতে হবে। আমাদের দেশ, আমাদের পতাকা রক্ষার দায়িত্ব আমাদের।

দেশের স্বাধীনতা অর্জনে যেভাবে শেখ মুজিবুর রহমান জাগ্রত বীরের বেশে নেতৃত্ব দিয়েছিলেন ঠিক তেমনি আরো একজন মুজিব আমাদের চাই। আওয়ামী লীগ, বিএনপি জাতীয় পার্টি, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশসহ সকল দলের সমন্বয়ে গঠিত হওয়া উচিত স্বাধীনতা সুরক্ষা কমিটি। এখনও যদি আমরা ঘুমিয়ে থাকি তাহলে ভারত আমাদের গ্রাস করবে। সিকিমের ন্যায় ভাগ্যবরণ করবে বাংলাদেশ।

আসুন ৭১ এর প্রেরণা বুকে ধারণ করে স্বাধীনতা রক্ষায় আবারো ঐক্যবদ্ধ হই।শ্লোগান তুলি–
“মোরা ভাই ভাই স্বাধীনতা সুরক্ষা চাই”

খবরটি শেয়ার করুন..

Comments are closed.




© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি ।
নির্মান ও ডিজাইন: সুশান্ত কুমার মোবাইল: 01748962840