সংবাদ শিরোনাম:
টাঙ্গাইলে একইসাথে দুই করোনা যোদ্ধার জন্মদিন উদযাপন এমপি মমতা হেনা লাভলীর টাঙ্গাইলে বন্যার্তদের মাঝে ত্রান বিতরণ সার্ক মানবাধিকার ফাউন্ডেশন, টাঙ্গাইল জেলা শাখার নতুন কমিটি এমপি হিরোর বিরুদ্ধে সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা লাগানোর অপচেষ্টার অভিযোগ টাঙ্গাইলে ছাত্রলীগ কর্তৃক বৃক্ষরোপণ কর্মসূচী পালন মানিক শিকদারের ব্যবস্থাপনায় টাঙ্গাইলে জাতীয় শোক দিবস পালন টাঙ্গাইলের পৌর মেয়র জামিলুর রহমানে মিরনের ব্যবস্থাপনায় টাঙ্গাইলে শোক দিবস পালন প্রবাসে থেকেও থেমে নেই টাঙ্গাইলের মুজাহিদুল ইসলাম শিপন মেয়র লোকমানের আত্মস্বীকৃত খুনি এমপি সাহেবের প্রোগ্রামে সক্রিয় জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি নিজেই প্রধান অতিথী, সভাপতিত্ব করবেন কে?
দুই ক্ষমতাধর এমপি সহ ২২ জনের বিদেশ যাত্রায় নিষেধাজ্ঞা

দুই ক্ষমতাধর এমপি সহ ২২ জনের বিদেশ যাত্রায় নিষেধাজ্ঞা

এমপিদের বিদেশযাত্রায় নিষেধাজ্ঞা
ক্যাসিনো কান্ডে নিষেধাজ্ঞা

ক্যাসিনোকাণ্ড, টেন্ডার বাজি ও দুর্নীতি অনিয়ম করে অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগে ক্ষমতাসীন দলের হুইপ ও সংসদ সদস্য সামশুল হক চৌধুরী ও নুরুন্নবী চৌধুরী শাওনসহ ক্ষমতাধর ২২ জন নেতার বিদেশযাত্রায় নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)।

গত তিন দিনে জি কে শামীম ও খালেদ মাহমুদ ভূঁইয়াসহ সাতজনের বিরুদ্ধে চারটি মামলা করেছে দুদক। দুদক ক্রমান্বয়ে আর-ও সক্রিয় ভূমিকা নিচ্ছে।

বিশেষসূত্র মারফত আমরা ক্ষমতাধর ২২ জনের বিদেশযাত্রায় নিষেধাজ্ঞার বিষয়টি নিশ্চিত হই। গোপনসূত্রে জানা গেছে আগামী সপ্তাহে আরো ২০ থেকে ২৫ জনের বিরুদ্ধে দেশত্যাগে নিষেধাজ্ঞা জারি করে চিঠি পাঠাবে দুদক।

যথাক্রমে মঙ্গলবার ও বুধবার দুদকের পরিচালক ও অনুসন্ধান দলের প্রধান সৈয়দ ইকবাল হোসেনের সই করা নিষেধাজ্ঞার চিঠি দুই দফায় পুলিশের বিশেষ শাখার (এসবি) বিশেষ পুলিশ সুপার (ইমিগ্রেশন) বরাবর পাঠানো হয়েছে।

বিদেশযাত্রায় নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে কারন এই সমস্ত ব্যক্তির বিরুদ্ধে বিভিন্ন দেশে মানি লন্ডারিংসহ বা অর্থপাচার সহ নানাধরণের অন্যায়/অনীয়ম এর অভিযোগ আছে। দুদকের অভিযোগের প্রেক্ষিতে প্রাথমিক অনুসন্ধান করে, অনুসন্ধানে সত্যতা পাওয়া গেছে।

অবৈধ সম্পদ অর্জন এবং বিদেশে অর্থপাচারের অভিযোগে প্রতি সপ্তাহেই অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে মামলা করা হচ্ছে দুদুকের পক্ষ থেকে। পরিস্থিতি বেগতিক দেখে অভিযুক্তরা অনেকে কৌশলে দেশের বাইরে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করছেন। তাঁরা যাতে পালিয়ে যেতে না পারেন সে জন্য এই নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে। দুদক বিচার প্রক্রিয়ায় আগাতে গিয়ে দেখেন অপরাধী দেশ ছেড়ে বিদেশে তাই এবার নিষেধাজ্ঞা আরোপ।

অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগে সুনির্দিষ্ট তথ্য-প্রমাণের ভিত্তিতে পর্যায়ক্রমে মামলাও ও গ্রেফতারে দুদুক আর-ও সক্রিয় হচ্ছে। এমপি নুরুন্নবী চৌধুরী শাওন (ভোলা), চট্টগ্রামের ক্ষমতাধর এমপি ও জাতীয় সংসদের হুইপ সামশুল হক চৌধুরী ।

আলোচিত গ্রেপ্তার হওয়া যুবলীগ নেতা এস এম গোলাম কিবরিয়া শামীম ওরফে জি কে শামীম সহ মহানগর দক্ষিণ যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক (বহিষ্কৃত) খালেদ মাহমুদ ভূঁইয়া, মোহামেডান ক্লাবের পরিচালক (ইনচার্জ) মো. লোকমান হোসেন ভূঁইয়া (নাজমুল হক পাপনের ঘনিষ্ঠ সহচর), ঢাকা মহানগর যুবলীগ দক্ষিণের সভাপতি ইসমাইল চৌধুরী সম্রাট (যুবলীগের একচ্ছত্র অধিপতি), সম্রাটের সহযোগী এনামুল হক আরমান, কলাবাগান ক্রীড়াচক্রের সভাপতি মোহাম্মদ শফিকুল আলম (ফিরোজ), অনলাইন ক্যাসিনোর হোতা সেলিম প্রধান এবং ঢাকা উত্তর সিটির ওয়ার্ড কাউন্সিলর হাবিবুর রহমান (মিজান), এরা সবাই আছেন নিষেধাজ্ঞার তালিকায়। এরা অনেকেই পুলিশের হেফাজতেও রয়েছেন।

নিষেধাজ্ঞা দেওয়া হয়েছে গেণ্ডারিয়া থানা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি এনামুল হক এনু ও তাঁর ভাই গেণ্ডারিয়া থানা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক রুপন ভূঁইয়ার ওপর।

এনামুল হকের সহযোগী ওয়ান্ডারার্স ক্লাবের কর্মচারী আবুল কালাম আজাদ (আজাদ রহমান), রাজধানীর কাকরাইলের জাকির এন্টারপ্রাইজের মালিক মো. জাকির হোসেন ও সেগুনবাগিচার শফিক এন্টারপ্রাইজের মালিক মো. শফিকুল ইসলামের বিদেশযাত্রায় নিষেধাজ্ঞা দেওয়া হয়েছে, চিঠি পৌঁছে গেছে ইমিগ্রেসনে।

গোপন ও বিশ্বস্ত দুদকের এক সূত্রে জানা যায় আগামী সপ্তাহে বিদেশযাত্রায় নিষেধাজ্ঞা দেওয়া হবে কমপক্ষে আরও ২৫ জনের ওপর। ইতিমধ্যে ৭০-৮০ জনের বেশি ব্যক্তির বিরুদ্ধে অবৈধ সম্পদ অর্জনের বিভিন্ন তথ্য-প্রমাণাদি দুদকের হাতে এসেছে।

গত ৩০ সেপ্টেম্বর ক্যাসিনোকাণ্ডে জড়িতদের সম্পদ অনুসন্ধানের সিদ্ধান্ত নেয় দুদক। পরিচালক সৈয়দ ইকবাল হোসেনের নেতৃত্বে পাঁচ সদস্যের অনুসন্ধানদল গঠন করা হয়। পরে আরো দুজনকে দলে যুক্ত করা হয়। অনুসন্ধান দলের সদস্যরা গণমাধ্যমে আসা বিভিন্ন ব্যক্তির নাম যাচাই-বাছাই করে প্রথমে একটি প্রাথমিক তালিকা তৈরি করেন। পরবর্তীতে নিজস্ব সংস্থার গোয়েন্দা শাখার পক্ষ থেকে এসব তথ্য যাচাই-বাছাই করা হয়। পাশাপাশি র‌্যাব ও ইন্টেলিজেন্স ইউনিটের (বিএফআইইউ) প্রধানরা সম্প্রতি দুদক চেয়ারম্যান ইকবাল মাহমুদের সঙ্গে বৈঠক করে বিপুল পরিমাণ গোয়েন্দা তথ্য সরবরাহ করেন। সর্বোপরী সরকারের ঐকান্তিক স্বদিচ্ছায় দেশব্যাপী সুদ্ধি অভিযানে দেশবাসী সাধুবাদ জানাচ্ছে সবসময়।

ক্ষমতাধর ব্যক্তিদের এভাবে ধরায় অনেক দুর্নিতীবাজ শীর্ষ সন্ত্রাসী এখন নিজেদের বাঁচানোর জন্য অনেক বেশি সতর্ক হচ্ছেন আবার দেশ ছেড়ে গোপনে বিভিন্ন অযুহাতে পালাচ্ছেন। দুদক সতর্ক রয়েছেন তাদের প্রতি। নিষেধাজ্ঞা আরোপ করছেন একের পর এক ক্ষমতাধরের বিরুদ্ধে।

খবরটি শেয়ার করুন..

Comments are closed.




© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি ।
নির্মান ও ডিজাইন: সুশান্ত কুমার মোবাইল: 01748962840