সংবাদ শিরোনাম:
টাঙ্গাইলে একইসাথে দুই করোনা যোদ্ধার জন্মদিন উদযাপন এমপি মমতা হেনা লাভলীর টাঙ্গাইলে বন্যার্তদের মাঝে ত্রান বিতরণ সার্ক মানবাধিকার ফাউন্ডেশন, টাঙ্গাইল জেলা শাখার নতুন কমিটি এমপি হিরোর বিরুদ্ধে সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা লাগানোর অপচেষ্টার অভিযোগ টাঙ্গাইলে ছাত্রলীগ কর্তৃক বৃক্ষরোপণ কর্মসূচী পালন মানিক শিকদারের ব্যবস্থাপনায় টাঙ্গাইলে জাতীয় শোক দিবস পালন টাঙ্গাইলের পৌর মেয়র জামিলুর রহমানে মিরনের ব্যবস্থাপনায় টাঙ্গাইলে শোক দিবস পালন প্রবাসে থেকেও থেমে নেই টাঙ্গাইলের মুজাহিদুল ইসলাম শিপন মেয়র লোকমানের আত্মস্বীকৃত খুনি এমপি সাহেবের প্রোগ্রামে সক্রিয় জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি নিজেই প্রধান অতিথী, সভাপতিত্ব করবেন কে?
নারায়ণগঞ্জে মেয়র আইভির সাহসী বক্তব্য

নারায়ণগঞ্জে মেয়র আইভির সাহসী বক্তব্য

নারায়ণগঞ্জে মেয়র আইভির সাহসী বক্তব্য
নারায়ণগঞ্জে মেয়র আইভির সাহসী বক্তব্য

নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের মেয়র ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভী বলেছেন, ‘সরকার ১১ হাজার রাজাকারের তালিকা প্রকাশ করেছে। ওবায়দুল কাদের বলেছেন, আমরা রাজাকারের বংশধরদের কোথাও দেখতে চাই না। এর পরিপ্রেক্ষিতে আমি বলতে চাই, একজন রাজাকারের ছেলে কীভাবে নারায়ণগঞ্জ চেম্বার অব কমার্সের সভাপতি হয়? সকলেই জানে রাজাকার গোলাম রাব্বানি নারায়ণগঞ্জের গলাচিপায় অনেক মানুষকে হত্যা করেছে, লুটপাট করেছে।

রাব্বানী যখন মারা যায় তখন পাকিস্তানের পতাকা দিয়ে তাকে জানাজা দেওয়া হয়েছে। সেই কুলাঙ্গারের সন্তানরা কীভাবে সরকারি প্রতিষ্ঠান রাইফেলস ক্লাবের মতো জায়গায় সাধারণ সম্পাদক, চেম্বার অব কমার্সের মতো সংগঠনের সভাপতি হয়? জনতার কাতারে এনে যারা তাদের বানিয়েছে তাদেরও বিচার করা উচিত। খতিয়ে দেখা উচিত কারা তাদের এখানে এনেছে?

সোমবার বিকেলে নগরের জিমখানা স্টেডিয়ামে নাসিক কর্তৃক আয়োজিত প্রীতি ফুটবল ম্যাচ শেষে তিনি এসব কথা বলেন। তিনি আরও বলেন “নৌকাকে ফেল করিয়ে রাজাকারের সন্তানকে চেয়ারম্যান বানানো হয়। আমি নারায়ণগঞ্জের মানুষকে বলব সোচ্চার হওয়ার জন্য। বিশেষ করে আমার পাশে যিনি বসে আছেন মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার তাকে বলছি এত ভয়ভীতি কীসের!

যখন যুদ্ধে গিয়েছিলেন তখন তো মৃত্যুকে ভয় পাননি। আজ যখন রাজাকারের সন্তানরা বসে থাকে আপনাদের সামনে, আপনারা তাদের নেতৃত্বে অনেক কিছু করেন। সেই কথা কেন বলেন না। রাজাকারদের সন্তানদের এখান থেকে নামানোর জন্য দুর্বার আন্দোলন গড়ে তুলুন। আর যারা এই রাজাকারদের ছায়া দেবে, আমি তাদের বিরুদ্ধে অবস্থান নেব। আপনারা ভয় পাচ্ছেন বলেই আজ মুক্তিযোদ্ধাদের নাম রাজাকারের তালিকায়। দেশের এতো গুরুত্বপূর্ণ দলিল তৈরি করলো কারা? কারা মুক্তিযোদ্ধাদের রাজাকার আখ্যায়িত করলো?”


নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা এএফএম এহতেশামুল হকের সভাপতিত্বে এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন প্যানেল মেয়র আফসানা আফরোজ বিভা, মুক্তিযোদ্ধা আমিনুর রহমান, ওয়ার্ড কাউন্সিলর কবির হোসেন প্রমুখ।

দেশজুড়ে ক্ষোভে ফেটে পড়েছেন সকল মানুষ। বাংলাদেশ সরকারের মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রনালয় এমন দায়িত্বজ্ঞানহীন কর্মকান্ড সম্পাদন করায় রীতিমত বাকরুদ্ধ হয়ে পরেছে পুরো জাতি। মুক্তিযোদ্ধারা অপমানে বলতে বাধ্য হয়েছেন “এসব দেখার আগে তাদের মৃত্যু হল না কেন?”

দেশের বড় বড় পদ দখল করে আছেন চিহ্নিত রাজাকারের উত্তরসূরীরা আর মুক্তিযোদ্ধাদের দেয়া হচ্ছে রাজাকারের অপবাদ। আওয়ামীলীগ সরকার মুক্তিযুদ্ধের স্বপক্ষের শক্তি আর তাদের আমলেই তাদের লোকজন দ্বারা এমনটি হলো যা নিয়ে শঙ্কিত নীতি নির্ধারকগণ।

সেলিনা হায়াত আইভি স্পষ্টভাবেই নারায়ণগঞ্জের মানুষকে বুঝাতে চেয়েছেন স্বাধীনতা বিরোধী অপশক্তি আজ শুধু নারায়নগঞ্জ নয় পুরো বাংলাদেশ চষে বেড়াচ্ছে, চুষে খাচ্ছে। দেশের বড় বড় পদে যদি রাজাকারের বংশধরেরা আসীন হয় তবে মুক্তিযোদ্ধাদের নাম রাজাকারের তালিকায় যাওয়া অস্বাভাবিক হবে নয়। বরং অদূর ভবিষ্যতে জেনারেল এম এ জি উসমানি কিংবা জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এর নাম-ও মুক্তিযুদ্ধের স্বপক্ষ থেকে বাদ যেতে পারে। সেখানে জায়গা নিতে পারে মুজাহিদরা।

কয়েকদিন আগে একজন রাজাকারকে শহীদ বলায় তার উপরে যারা হামলা করলো আজ তাদের হাত দিয়েই মুক্তিযোদ্ধাদের নাম রাজাকারের তালিকায়। কে সতর্ক হবে? কারা ব্যবস্থা নিবে? সরষের মাঝেই ভূত!

খবরটি শেয়ার করুন..

Comments are closed.




© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি ।
নির্মান ও ডিজাইন: সুশান্ত কুমার মোবাইল: 01748962840