সংবাদ শিরোনাম:
টাঙ্গাইলে একইসাথে দুই করোনা যোদ্ধার জন্মদিন উদযাপন এমপি মমতা হেনা লাভলীর টাঙ্গাইলে বন্যার্তদের মাঝে ত্রান বিতরণ সার্ক মানবাধিকার ফাউন্ডেশন, টাঙ্গাইল জেলা শাখার নতুন কমিটি এমপি হিরোর বিরুদ্ধে সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা লাগানোর অপচেষ্টার অভিযোগ টাঙ্গাইলে ছাত্রলীগ কর্তৃক বৃক্ষরোপণ কর্মসূচী পালন মানিক শিকদারের ব্যবস্থাপনায় টাঙ্গাইলে জাতীয় শোক দিবস পালন টাঙ্গাইলের পৌর মেয়র জামিলুর রহমানে মিরনের ব্যবস্থাপনায় টাঙ্গাইলে শোক দিবস পালন প্রবাসে থেকেও থেমে নেই টাঙ্গাইলের মুজাহিদুল ইসলাম শিপন মেয়র লোকমানের আত্মস্বীকৃত খুনি এমপি সাহেবের প্রোগ্রামে সক্রিয় জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি নিজেই প্রধান অতিথী, সভাপতিত্ব করবেন কে?
পলাশে সন্ত্রাসী সাহাব উদ্দীন দিন দুপুরে প্রকাশ্যে কলাচাষীর ২বিঘা কলাবাগান লুটিয়ে দিলো

পলাশে সন্ত্রাসী সাহাব উদ্দীন দিন দুপুরে প্রকাশ্যে কলাচাষীর ২বিঘা কলাবাগান লুটিয়ে দিলো

কলাচাষীর ২বিঘা কলাবাগান লুটিয়ে দিলো
কলাচাষীর ২বিঘা কলাবাগান লুটিয়ে দিলো

নরসিংদী জেলার পলাশ থানাধীন জিনারদী ইউনিয়ন এর দক্ষিণ পারুলিয়া গ্রামের শাহাবুদ্দীন গাজী ০৯-০৮-২০২০ দিনদুপুরে বড় ভাই হানিফা গাজীর কলাবাগান নিমিষেই মাটির সাথে লুটিয়ে দিলো।

এলাকাবাসীর কাছে খোঁজ নিয়ে জানা গেছে দুই ভাই হওয়া স্বত্বেও দীর্ঘদিন যাবৎ তাদের জায়গা বন্টন নিয়ে ব্যাপক দ্বন্দ চলছিলো। একাধিকবার উঠান বৈঠকে বসলেও কোনো মিমাংসায় মেনে নিননি শাহাবুদ্দীন গাজী।

বিচারে বসে নিজ ওয়ার্ডের মেম্বার এবং তাদের ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এবং এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ বারবার তাদের রায় দিলেও সেই রায় অমান্য করে আসছে সাহাব উদ্দিন বার বার। এ নিয়ে এলাকার সুশীল মানুষ এবং মেম্বার চেয়ারম্যান সহ সকলেই তার প্রতি তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন।

শাহাবুদ্দীন গাজী অবৈধ ভাবে দখল করে খাচ্ছে পৈতৃক সম্পত্তির অনেকটা অংশ। অপর ভাই হানিফা গাজী তাদের নিজ অংশেও চাষাবাদ করতে বাধাগ্রস্ত হচ্ছে ক্রমেই।ইদানিং হানিফা গাজী ঘর করবে বলে তার নিজস্ব যায়গায় ঘরের প্রস্তুতি নিচ্ছিলো।কিন্তু শাহাবুদ্দীন সেখানেও বাঁধা।তার আপত্তি আগে তার অবৈধ দখলের যায়গাগুলোকে উনার নামে লিখে দিতে হবে।

আর তারই ধারাবাহিকতায় আজ বেলা তিনটার দিকে অসহায় হানিফা গাজীর ২ বিঘা জমির তরতাজা কলাবাগান কেটে নিমিষেই লুটিয়ে দিয়েছে মাটির সাথে।এই ঘটনার তীব্র নিন্দা ও সুষ্ঠু বিচারের দাবী জানাচ্ছে এলাকাবাসী।

এ ব্যাপারে হানিফা গাজীর সাথে কথা বললে তিনি জানান “আমি গরীব মানুষ, অনেক কষ্ট করে কৃষিকাজ করে কলাচাষ করে জীবিকা চালাই, আমার কষ্টের কলাবাগান কেটে ফেলার সুষ্ঠ বিচারের দাবী জানাচ্ছি।”

এ বিষয়ে শাহাবুদ্দীন কে জিজ্ঞাসা করলে কোনো সঠিক জবাব পাওয়া যায়নি।

এলাকাবাসী বলে সাহাবুদ্দিনকে বিচারের আওতায় না আনলে আজ ভাইয়ের উপর অত্যাচার করছে একসময় সকলের উপরেই তার পেশী শক্তির প্রভাব দেখাতে চাইবে। সন্ত্রাসী সাহাব উদ্দিনকে আইনের আওতায় নেয়া উচিত।

খবরটি শেয়ার করুন..

Comments are closed.




© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি ।
নির্মান ও ডিজাইন: সুশান্ত কুমার মোবাইল: 01748962840