সংবাদ শিরোনাম:
টাঙ্গাইলে একইসাথে দুই করোনা যোদ্ধার জন্মদিন উদযাপন এমপি মমতা হেনা লাভলীর টাঙ্গাইলে বন্যার্তদের মাঝে ত্রান বিতরণ সার্ক মানবাধিকার ফাউন্ডেশন, টাঙ্গাইল জেলা শাখার নতুন কমিটি এমপি হিরোর বিরুদ্ধে সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা লাগানোর অপচেষ্টার অভিযোগ টাঙ্গাইলে ছাত্রলীগ কর্তৃক বৃক্ষরোপণ কর্মসূচী পালন মানিক শিকদারের ব্যবস্থাপনায় টাঙ্গাইলে জাতীয় শোক দিবস পালন টাঙ্গাইলের পৌর মেয়র জামিলুর রহমানে মিরনের ব্যবস্থাপনায় টাঙ্গাইলে শোক দিবস পালন প্রবাসে থেকেও থেমে নেই টাঙ্গাইলের মুজাহিদুল ইসলাম শিপন মেয়র লোকমানের আত্মস্বীকৃত খুনি এমপি সাহেবের প্রোগ্রামে সক্রিয় জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি নিজেই প্রধান অতিথী, সভাপতিত্ব করবেন কে?

বিনা খরচে লোক নিবে জাপান

বিনা খরচে জাপান যাওয়ার সুযোগ
বিনা খরচে জাপান যাওয়ার সুযোগ

বিশ্বের নয় নম্বর দেশ হিসেবে জাপানের সাথে চুক্তি বদ্ধ হলো বাংলাদেশ। বিনা খরচে জাপান সরকার ১৪ টি খাতে বাংলাদেশ থেকে দক্ষ জনবল নিতে আগ্রহ প্রকাশ করেছে এবং চুক্তি সম্পন্ন করেছে।

মঙ্গলবার জাপানের রাজধানী টোকিও এর একটি কনভেনশন সেন্টারে জমকালো আয়োজনে জাপান-বাংলাদেশ এর সরকারী প্রতিনিধিদের মধ্যে এ সংক্রান্ত একটি সমঝোতা চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়।

চুক্তিতে জাপান সরকারের পক্ষ থেকে বাংলাদেশ থেকে দক্ষ জনশক্তি চেয়ে প্রস্তাব করা হয়। বাংলাদেশের প্রতিনিধিরা তাতে সম্মতি জানিয়ে স্বাক্ষরের মাধ্যমে ‍চুক্তিটি সম্পাদন করেন।

আগে থেকেই জাপানের জনশক্তি নেওয়ার তালিকায় ছিল চীন, ইন্দোনেশিয়া, নেপাল, মিয়ানমার, ফিলিপাইন, মঙ্গোলিয়া, থাইল্যান্ড ও ভিয়েতনাম। এবার নবম দেশ হিসেবে তালিকায় যুক্ত হলো বাংলাদেশ।

জাপানে ১৪টি খাতে বিনা খরচে দক্ষ বাংলাদেশি কর্মী পাঠানোর সুযোগ সৃষ্টি হওয়াতে দেশের মানুষের বেকারত্ব ঘুুচবে অনেকের। আগামী পাঁচ বছর বাংলাদেশ থেকে জাপান সরকার শিল্প, কারখানা, নির্মাণকাজ, উত্তোলন, নিষ্কাশন, কৃষি, অটোমোবাইল, সেবাদানকারীসহ মোট ১৪ টি কাজের মান নির্নয়ের মাধ্যমে দক্ষ জনবল নিবে এই দেশ থেকে।

উক্ত চুক্তিপত্রে বাংলাদেশর পক্ষে বাংলাদেশ প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের সচিব রওনক জাহান স্বাক্ষর করেন।

জাপানের বিচার বিষয়ক মন্ত্রণালয় অধীন ইমিগ্রেশন সার্ভিস এজেন্সির কমিশনার সোকো সাসাকি জাপান সরকারের প্রতিনিধি হিসেবে স্বাক্ষর করেন। আগামী পাঁচ বছরে সাড়ে তিন লাখ বিদেশি কর্মী নেবে দেশটি। যেখানে দক্ষতার ভিত্তিতে বাংলাদেশ থেকেও বিশাল অঙ্কের কর্মী পাঠানো সম্ভব।

অনেক দিন ধরেই বাংলাদেশ সরকারের প্রচেষ্টা ছিল জাপানের কর্মী আমদানির তালিকায় প্রবেশের করা। সেই চেষ্টায় অবশেষে সফলতা অর্জন করল বাংলাদেশে সরকার।

মাদার অফ হিউম্যানিটি খ্যাত প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কিছুদিন পূর্বে জাপান সফরে বিষয়টি নিয়ে আলোচনা হয়। তিনি এই বিষয়ে দৃঢ় আশাবাদ ব্যক্ত করেন। তার স্বপ্নের সোনালি ফসল হিসেবে চুক্তিবদ্ধ হলো দুই দেশ।

চুক্তি স্বাক্ষরের বিষয়ে সচিব রওনক জাহান বলেন, “এই চুক্তির ফলে আনুষ্ঠানিকভাবে বড় আকারে জাপানের শ্রম বাজারে বাংলাদেশ সুযোগ পেল, যা দুই দেশের জন্য লাভজনক হবে। আমাদের শ্রম বাজার অনেক বড়। আমাদের দক্ষ শ্রমিকের অভাব নেই। আমরা বিশাল অঙ্কের জনশক্তি রফতানির মাধ্যমে দেশের রেমিট্যান্স আয় যেমন বাড়বে তেমনি বেকারদের দু:খ লাঘব হবে কিছুটা। সাড়ে তিন লাখ লোক নিবে জাপান যার সিংহ ভাগ আমরা দিতে চাই। সে জন্য আমাদের দেশের শ্রমিকদের দক্ষ হতে হবে। আমরা প্রাকৃতিকভাবেই অন্যদের চেয়ে অনেক পরিশ্রমি। আমরা বলিষ্ঠ। কাজের মাধ্যমেই জাপানে যোগ্যতার প্রমান রাখতে হবে।”

জাপান সরকারের প্রতিনিধিদের মুখ পাত্র বলেন “বাংলাদেশের জন্য শুভ কামনা। আমরা আশা করছি তাদের থেকে ভালো সেবা পাবো। বাংলাদেশ জনশক্তি রপ্তানিতে বিশ্বের বুকে অন্যতম একটি সেরা দেশ। এই দেশের দক্ষ সরকারের হাত দিয়ে আমরা দক্ষ শ্রমিক পেতে চাই। আমরা যদি ভালো মানের শ্রমিক পাই। ভবিষ্যৎ এ প্রয়োজনের প্রেক্ষিতে আর-ও বেশি বেশি শ্রমিক আমরা বাংলাদেশ থেকে নেবো। আমাদের উৎপাদন বাড়াতে চাই, সেবার মান বাড়াতে চাই। আশা করি বাংলাদেশ এই ব্যাপারে আমাদের সহযোগিতা করতে পারবে।”

প্রবাসী বাংলাদেশি হারুন অর রশিদ বলেন “এটি বাংলাদেশের জন্য কতো বড় সুযোগ তা কেবল আমরাই বুঝি। জাপান এমন একটি দেশ যারা দুর্নিতী বুঝে না। মিথ্যা বুঝে না। বাহরাইন সহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশে আমরা যারা আছি তারা জানি এই দেশে আমরা যা শ্রম দেই। যা পাওনা তার অর্ধেক-ও উঠাতে পারি কি না। বেশীর ভাগ দেশগুলোই বেতন ঝুলিয়ে রাখে আর একটা সময় মেরে দেয় কিন্তু জাপানে এমনটা হওয়ার সুযোগ নেই। জাপান এর নাগরিকরা অত্যন্ত সৎ ও ভদ্র।”

বাংলাদেশে যে যুবকেরা হতাশ হয়ে আছে। তাদের জন্য আশারবানী এটা। জাপানে প্রশিক্ষণ নিয়ে প্রশিক্ষিত শ্রম জীবীরা প্রবেশ করার মাধ্যমে সেখানে বাংলাদেশের জন্য উন্নত শ্রম বাজার তৈরি হবে বলে আমরা আশাবাদি।

খবরটি শেয়ার করুন..

Comments are closed.




© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি ।
নির্মান ও ডিজাইন: সুশান্ত কুমার মোবাইল: 01748962840