সংবাদ শিরোনাম:
টাঙ্গাইলে একইসাথে দুই করোনা যোদ্ধার জন্মদিন উদযাপন এমপি মমতা হেনা লাভলীর টাঙ্গাইলে বন্যার্তদের মাঝে ত্রান বিতরণ সার্ক মানবাধিকার ফাউন্ডেশন, টাঙ্গাইল জেলা শাখার নতুন কমিটি এমপি হিরোর বিরুদ্ধে সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা লাগানোর অপচেষ্টার অভিযোগ টাঙ্গাইলে ছাত্রলীগ কর্তৃক বৃক্ষরোপণ কর্মসূচী পালন মানিক শিকদারের ব্যবস্থাপনায় টাঙ্গাইলে জাতীয় শোক দিবস পালন টাঙ্গাইলের পৌর মেয়র জামিলুর রহমানে মিরনের ব্যবস্থাপনায় টাঙ্গাইলে শোক দিবস পালন প্রবাসে থেকেও থেমে নেই টাঙ্গাইলের মুজাহিদুল ইসলাম শিপন মেয়র লোকমানের আত্মস্বীকৃত খুনি এমপি সাহেবের প্রোগ্রামে সক্রিয় জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি নিজেই প্রধান অতিথী, সভাপতিত্ব করবেন কে?
বৃষ্টিভেজা রাজধানীতে পুলিশের আজ ভ্যান সার্ভিস

বৃষ্টিভেজা রাজধানীতে পুলিশের আজ ভ্যান সার্ভিস

জনদুর্ভোগে পাশে পুলিশ
জনদুর্ভোগে পাশে পুলিশ

আজ ঢাকা সহ সারাদেশের অধিকাংশ স্থানে বৃষ্টি হচ্ছিল। ঢাকাতে দীর্ঘ সময় বৃষ্টি হওয়ার কারনে রাস্তায় যান চলাচল একেবারে কমে গিয়েছিল ফলে বাংলাদেশ পুলিশ বাহিনী একটি ঈর্ষনীয় উদ্যোগ নেন। পুলিশ ভ্যানে করে সাধারণ জনগণের সত্যিকারের বন্ধু হয়ে বাংলাদেশ পুলিশ বাহিনী তাদের যাত্রাপথে সহযোগিতা করেন।

মো: রফিকুল ইসলাম নামের একজন বলেন “আজকে অফিস থেকে বের হয়ে দেখি বাইরে বৃষ্টি, তবে কিছুক্ষণের মধ্যেই তা গুড়ি গুড়ি বৃষ্টিতে রূপান্তরিত হওয়ার বাসার উদ্দেশ্যে রওনা দেই। কাকলী বাসস্ট্যান্ড এলাকায় এসে দেখি লোকজনের বেহাল অবস্থা, কয়েকশত মানুষ, কিন্তু বাস খুব ই কম। প্রায় ৩০ মিনিট অপেক্ষা করার পরও কোনা বাস না পেয়ে দাঁড়িয়ে আছি।

এর কিছুক্ষনের মধ্যেই একটি পুলিশ ভ্যান সামনে এসে থামল এবং আমিসহ এয়ারপোর্টগামী কয়েকজন কে গাড়িতে উঠার আমন্ত্রণ জানায়। আমি প্রথমে একটু কনফিউজড ছিলাম পরে পরে কিছু না ভেবে উঠে পড়লাম আর কি।

পুরো রাস্তায় পুলিশের এই কার্যক্রম চোখে পরলো। যারা উঠার সুযোগ পেয়েছিল সবাই সাধুবাদ জানায়। আমি নিজেও সিটে বসে কিছু ছবি তুললাম ভাবলাম এই ধরনের একটা কাজ কে ছড়িয়ে দিতে ভালই লাগবে।”

আব্দুর রহমান লিখেছেন “ধন্যবাদ জানাতে চাই বাংলাদেশ পুলিশকে এ ধরনের সহযোগিতামূলক মন-মানসিকতা দেখানোর জন্য। তবে সেটা যদি তারা শুধুমাত্র তাদের পজেটিভ মার্কেটিং জন্য করে থাকে সেটা নিতান্তই তাদের ব্যাপার। ভালো কাজ করেছেন ওনারা, একবার ঈদের সময় আমরা ১০-১৫ জন মালিবাগ রেলগেট এর মোড়ে দাঁড়িয়ে ছিলাম কিন্তু কোন বাস পাচ্ছিলাম না যাবার জন্য । খুব অল্প বাস তাও আবার সিটিং।

এক পুলিশ সার্জেন্ট একটি শ্যামলী পরিবহনের বাস দাঁড় করিয়ে আমাদের সকলকে উঠিয়ে দেয় , আমরা অনেক ভালো ভাবে যেতে পারছিলাম।”

“পুলিশের উপরিমহলের কোন কর্তা ব্যক্তির নির্দেশনাতেই অবশ্য এই কাজটি হয়েছে। সারা শহরেই অন ডিউটি পুলিশ এভাবে সহযোগিতা করেছে। যার মাথায় এতো সুন্দর একটি উদ্যোগ এসেছে তিনি অবশ্যই ধন্যবাদ পাবার অধিকার রাখেন। তারপর-ও কিছু লোক বিষয়টাকে নেগেটিভলি নিবে তাতে কি ! বাংলাদেশের পুলিশ ইফতার বিলি করলে আমরা বলি ঘুষের টাকায় নাতো? আর দুবাই পুলিশের এই কাজে দেই বাহবা” বলেন একজন।

পুলিশের এমন মহা উদ্যোগের ফলে আজ জন জীবনের ভোগান্তি কমেছে। যেখানে বাস মালিক-শ্রমিক ইউনিয়ন তাদের ইচ্ছাকৃত ক্রাইসিস তৈরি করে সেখানে এমন অবদান রাখলে তারা সাধারণ মানুষের কর্মকান্ডে কোন রূপ প্রভাব ফেলতে পারবে না। পুলিশ এমন কর্মকান্ডের মাধ্যমে তাদের বাহিনীর ভাবমূর্তি উজ্বল করবে। ধন্যবাদ পুলিশ বাহিনীকে। স্বাগত এমন মহান উদ্যোগ কে।” বলেন ফজলুল হক নামের একজন।

পুলিশকে এমন উদ্যোগের জন্য ভন্ড আর অভনয় বলতেও ছাড়েনি একাংশ। আবার তাদের কথার-ও তীব্র প্রতিবাদ করেন সাধারণ মানুষ। বলেন কারো ভালটাই আমাদের সহ্য হয় না। ভাল কাজের আমরা স্বীকৃতি দিতে পারি না।

পুলিশ এখন সহযোগিতা করছে একটু পর এরেস্ট করবে। এমন বোকার মত মন্তব্য-ও করেছে অনেকে। বিভিন্ন জন বলেছেন এটি তাদের একটি প্রচার পাওয়ার কৌশল। তারা নিজেরা এসব করে আবার ছবি তুলে নিজেরাই প্রচার করছেন। তবুও একাংশ সাধুবাদ জানাতে ভুল করেন নি। বলেছেন যদি এই কাকটির পেছনে কোন গোপন উদ্দেশ্য-ও থাকে তবুও পুলিশকে ধন্যবাদ এমন উদ্যোগে।

ঈদের সময় পুলিশ জনগনের বন্ধু হয়ে অনেক সময়ই এমন উদ্যোগ নেন। আজ বৃষ্টিস্নাত রাজধানি যেন আনন্দ মুখর একটি পরিবেশ তৈরি করেছিল। পুলিশ এর সাথে এভাবে জনগণের সাথে সখ্যতা হবে এতে কোন সন্দেহ নেই। জনগণের পুলিশের প্রতি যে বিরূপ ধারণা এমন সব ভালো ও সময়োপযোগী সিদ্ধান্ত নেয়ার মাধ্যমেই দূর করা সম্ভব। পুলিশ জনগণের বন্ধু এভাবেই প্রমানিত হতে পারে। যে কোন পরিস্থিতিতে পুলিশকে জনগনের পাশে থাকার মাধ্যমেই তাদের গ্রহণযোগ্যতা বাড়াতে হবে।

খবরটি শেয়ার করুন..

Comments are closed.




© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি ।
নির্মান ও ডিজাইন: সুশান্ত কুমার মোবাইল: 01748962840