সংবাদ শিরোনাম:
বিডি ক্লিনের প্রধান সমন্বয়কের বিরুদ্ধে প্রতারণার অভিযোগ ঈদের শুভেচ্ছা জানালেন বাংলাদেশ ছাত্রলীগ এর সাবেক সহ সভাপতি মশিউর রহমান শরিফ নরসিংদী মডেল থানার নতুন ওসি বিপ্লব কুমার দত্ত চৌধুরী টাঙ্গাইল পৌর ভবন এখন করোনার হট স্পট সাহেদের ৫০ দিনের রিমান্ড আবেদন শাহিন স্কুলের কর্তৃপক্ষ তালা ঝুলিয়ে পালালেন দলীয় নেতা কর্মীরা মিথ্যার জাহাজ হিসেবে আখ্যায়িত করলেন কেন্দ্রীয় তাঁতী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদককে ক্লিন টাঙ্গাইলের উদ্যোগে চতুর্থবারের মত প্রতিবন্ধীদের মাঝে উপহারসামগ্রী বিতরণ মিথ্যার আশ্রয় নিয়ে তাঁতী লীগের মন্তাজউদ্দীন ভূঁইয়ার কর্মসূচি ব্যারিষ্টার ছেলের পিতা টাঙ্গাইল পৌর প্যানেল মেয়র সাইফুজ্জামান সোহেল
মাওলানা ভাসানী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি পরীক্ষার্থীদের সহযোগিতায় টাঙ্গাইলের মেয়রের অসাধারণ উদ্যোগ

মাওলানা ভাসানী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি পরীক্ষার্থীদের সহযোগিতায় টাঙ্গাইলের মেয়রের অসাধারণ উদ্যোগ

জামিলুর রহমান মিরন এর মতবিনিময় সভা
মেয়র জামিলুর রহমান মিরন এর মতবিনিময় সভা

মাওলানা ভাসানী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে ২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষে স্নাতক প্রথম বর্ষের ভর্তি পরীক্ষা উপলক্ষে দেশের বিভিন্ন জেলা থেকে আগত পরীক্ষার্থী ও অভিভাবকদের সার্বিক সহযোগিতা প্রদানের জন্য টাঙ্গাইল পৌর মেয়র আলহাজ্ব জামিলুর রহমান মিরন উদ্যোগ গ্রহণ করেছেন। ইতিমধ্যে বিভিন্ন যানবাহন সংশ্লিষ্ট শ্রমিক সংগঠনকে তিনি চিঠি ইস্যু করেছেন। তার চিঠির বিষয়বস্তু ছিল কেউ যেন এই জনসমুদ্রের স্রোতে নিজ ফাঁয়দা লুটতে বেশি ভাড়া আদায় না করেন। এছাড়াও খাবার হোটেল-রেস্টুরেন্ট এবং আবাসিক হোটেল মালিকগণকে অতিরিক্ত বিল না করতে বিশেষ ভাবে অনুরোধ করা হয়েছে। তিনি নিজ উদ্যোগে জেলা প্রশাসক এবং পুলিশ সুপারকে অবহিত করলে তারা প্রয়োজনীয় সহযোগিতা করবেন বলে আশ্বস্ত করেন।

মেয়র আলহাজ্ব জামিলুর রহমান মিরন এর এই মহান উদ্যোগকে সারাদেশের ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থী ও অভিভাবকগণসহ সর্বস্তরের মানুষ সাধুবাদ জানিয়েছেন।

মেয়র সাহেবের আন্তরিক প্রচেষ্টায় গতকাল টাঙ্গাইলের বিভিন্ন রাজনৈতিক-অরাজনৈতিক স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন নিয়ে একটি মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়। সেখানে বিগত বছরগুলোতে মাওলানা ভাসানী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থীদের সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠান “স্কলার’স শিক্ষা পরিবার” একাত্মতা প্রকাশ করেন। উক্ত প্রতিষ্ঠানের এমডি জাহিদুল ইসলাম চৌধুরী বলেন “আমরা গত বছর ৭০ জনের থাকার ব্যবস্থা করেছিলাম। বিশেষভাবে লক্ষনীয় ভর্তি পরীক্ষার্থীদের মধ্যে মেয়েরা অধিকাংশই আবাসন এবং নিরাপত্তাজনীত সমস্যায় ভুগে। আমরা এবছর মাননীয় মেয়র সাহেবের সহযোগিতায় ২ টি ক্যাম্পাসে ২০০ জন মেয়ের নিরাপত্তা বিধান এবং থাকার জায়গা দেবো। পরবর্তীতে এই সহযোগিতা অব্যাহত থাকবে এবং বাড়বে। ইনশাআল্লাহ্। যদি কেউ এই ২০০ মেয়ের খাবারের ব্যবস্থা করতে অনুদান দেয় তবে আমরা আন্তরিকভাবে তা গ্রহণ করবো এবং কৃতজ্ঞ থাকবো। না হলে আমাদের ক্যাম্পাস থেকে বিভিন্ন হোটেলে গিয়ে তাদের খাবার খাওয়া বেশ কঠিন হয়ে যাবে। আমরা একটু সহযোগিতার হাত বাড়ালেই তাদের এইটুকু সহযোগিতা করতে পারি।”

মাননীয় মেয়র সাহেব শীতের রাত কাটানোর জন্য প্রয়োজনীয় কম্বলের ব্যবস্থা করবেন বলে আশ্বস্ত করেন।

শামীম পিঠা ঘরের মালিক শামীম সাহেব ৪০০ লোকের থাকা-খাওয়ার ব্যবস্থা করবেন বলে জানান।

সমন্বয়কারী শাহিন চাকলাদার একজন দক্ষ সংগঠক হিসেবে নিজেকে বারবার প্রমান করে চলেছেন। তিনি একটি আবাসিক হোটেলের একটি ফ্লোর বিনাখরচে শিক্ষার্থীদের ব্যবহারের বন্দোবস্ত করেছেন। এছাড়াও সব শ্রেণি পেশার মানুষকে তিনি অতি দ্রুত সময়ে মতবিনিময় সভায় আহ্ববান করে উপস্থিত করতে পেরেছেন। তার মাধ্যমেই মতবিনিময় সভায় জানা যায়, সোনিয়া ফাউন্ডেশন ৩০ জন ভলান্টিয়ার দিবে এবং পরীক্ষার্থীদের যাতায়াতের জন্য ২০ টি অটো ভাড়া বহন করবে।

ছাত্রলীগের সিনিয়র যুগ্ম আহ্ববায়ক তানভীরুল ইসলাম হিমেল বলেন “আমি ৩৭০ জনের থাকার ব্যবস্থা করবো।”

সখিপুর ‍উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান লুৎফা আনোয়ার বলেন তিনি সবসময় প্রস্তুত থাকবেন। সার্বিক সহযোগিতার জন্য। এছাড়া ১০ জন ভলান্টিয়ার তিনি দেবেন।

মরহুম শওকত তালুকদারের সুযোগ্য সন্তান শিশির তালুকদার ৬০ জন ভলান্টিয়ারের দুপুরের খাবারের ব্যবস্থা এবং ফাস্ট এইড সামগ্রী সরবরাহ করবেন বলে আশ্বস্ত করেন।

মুক্তিযোদ্ধা শাজাহান চৌধুরী তার এলাকার কেন্দ্রের ১৩৪ জনের থাকা খাওয়ার দায়িত্ব নিতে আগ্রহ প্রকাশ করেন।

টাঙ্গাইল জেলা সিটিজেন জার্নালিস্ট গ্রুপ, আমাদের টাঙ্গাইল জেলা গ্রুপ সহ বিভিন্ন ফেসবুক গ্রুপের প্রতিথযশাব্যক্তিবর্গ সহযোগিতার হাত বাড়ান এবং সার্বিক সহযোগিতা করবেন বলে জানান।

টাঙ্গাইল পৌরসভার মেয়র আলোচনা শেষে দিক-নির্দেশনামূলক বক্তব্য রাখেন। তিনি স্বেচ্ছাসেবীদের উৎসাহপ্রদানের জন্য পুরুস্কারের ঘোষণা দেন। তিনি বলেন খুব শীঘ্রই ফায়ার সার্ভিসের সহযোগিতায় স্বেচ্ছাসেবীদের প্রশিক্ষণ দেয়া হবে। তিনি বলেন সবাই সহযোগিতার মনোভাব নিয়েছি এতেই আমাদের অর্ধেক কাজ হয়ে গেছে। তাদের সবচেয়ে বড় সহযোগিতা করতে হবে যাতে কেউ কোথাও হয়রানির শিকার না হোন। কোথাও যাতে তাকে অতিরিক্ত টাকা খরচ করতে না হয়। টাঙ্গাইল পৌরসভা সবসময় স্বেচ্ছাসেবী ও ভাল কাজে উৎসাহী ছিল, আছে এবং থাকবে।

৫ ডিসেম্বর বৃহস্পতিবার থেকে ৮ডিসেম্বর শনিবার ২০১৯ পর্যন্ত টাঙ্গাইল পৌরসভার উদ্যোগে যে মোট ১২ টি পয়েন্ট হতে স্বেচ্ছাসেবীগণ সেবা দিবেন। জায়গাগুলো হল-

১/ টাঙ্গাইল নতুন বাস স্ট্যান্ড,

২/ পুরাতন বাস স্ট্যান্ড,

৩/ রেল স্টেশন,

৪/ রাবনা বাইপাস রোড,

৫/ কুমুদিনী কলেজ রোড,

৬/ নিরালা মোড়

৭/ আশেকপুর বাইপাসে,

৮/ শান্তিগঞ্জের মোর

৯/ বেবীস্ট্যান্ড

১০/ কাগমারি কলেজ মোড়

১১/ সৃষ্টি সুপারি বাগান রোড

১২/ টাঙ্গাইল শহীদ স্মৃতি পৌর উদ্যান।

সংশ্লিষ্ট জায়গাগুলোতে “সেবক, টাঙ্গাইল পৌরসভা” খচিত ৫০০ ক্যাপ পরিহীত স্বেচ্ছাসেবকগণ সেবা দিয়ে যাবেন।

টাঙ্গাইল পৌরসভার এই ১২ টি স্পটে হেল্প ডেস্ক এর মাধ্যমে শিক্ষার্থীদের সিঁট প্লান সহ অন্যান্য সহযোগিতা প্রদান করা হবে। হেল্প ডেস্ক গুলোতে মোট ৫০০জন স্বেচ্ছাসেবক দায়িত্ব পালন করবেন।

এছাড়া পরীক্ষার্থী ও অভিভাবকদের যদি আবাসনের প্রয়োজন হয় সে ক্ষেত্রে রাতে থাকার জন্য পৌরসভার আন্ডারগ্রাউন্ড, পৌর মিলনায়তন ও শহরের বিভিন্ন জায়গায় বিনামূল্যে থাকার ব্যবস্থা করা হয়েছে।

এ ব্যাপারে টাঙ্গাইল পৌরসভার সম্মানিত মেয়র জনাব আলহাজ্ব জামিলুর রহমান মিরন নিম্নোক্ত ফোন নম্বরে প্রয়োজনীয় তথ্য ও যে কোন অভিযোগের জন্য যোগাযোগ করার আহ্বান জানিয়েছেন।

★ মৌ–01725-807514

★ শাহিন চাকলাদার–01865-037241

★ মিজানুর রহমান লিটন–01772-695118

★ মানিক–01711-466162

★তানভিরুল ইসলাম হিমেল–01830-746060

★ রাশেদ খান মেনন–01712-465070

★ মাসুদ –01711-181942

★ শিপলু–01620-392997

★ মাসুদ পারভেজ–01771-699010

★ শাহেদ–01712-695643

★ মেহেদি–01731-041131

★ শামীম আল মামুন (তুহিন) –01723-477 398

★ মাসুদ–01723-561039

★ রাকিব–01733-766438

★ তুরিং–01316-111363

★ মুকুল–01812-423343

★ রাসেল সরকার–01756-517094

★ লুৎফা আনোয়ার–01737-308377

★ জাহিদুল ইসলাম চৌধুরী–01742-352 758

মাওলানা ভাসানী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে ২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষের প্রথম বর্ষ স্নাতক (সম্মান/ইঞ্জিনিয়ারিং) বিবিএ ও বিফার্ম কোর্সে ভর্তি পরীক্ষা ৬ ও ৭ ডিসেম্বর-২০১৯ অনুষ্ঠিত হবে । এ বছর ৪টি ইউনিটে মোট পরীক্ষার্থীর সংখ্যা ৬৫০৫২ জন। ইতিমধ্যে পরীক্ষার সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন করা হয়েছে ।

৪টি ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসসহ টাঙ্গাইল শহরের মোট ৩৪ টি কেন্দ্রে অনুষ্ঠিত হবে । উল্লেখ্য, ০৬ ডিসেম্বর শুক্রবার সকাল ১০.৩০ মিনিটে’ A’ ইউনিট ও বিকেল ৩ টায় ‘B’ ইউনিট এবং ০৭ ডিসেম্বর শনিবার সকাল ১০.৩০ মিনিটে ‘C’ ইউনিট ও বিকেল ৩ টায় ‘D’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে ।

খবরটি শেয়ার করুন..

Comments are closed.




© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি ।
নির্মান ও ডিজাইন: সুশান্ত কুমার মোবাইল: 01748962840