সংবাদ শিরোনাম:
টাঙ্গাইলে একইসাথে দুই করোনা যোদ্ধার জন্মদিন উদযাপন এমপি মমতা হেনা লাভলীর টাঙ্গাইলে বন্যার্তদের মাঝে ত্রান বিতরণ সার্ক মানবাধিকার ফাউন্ডেশন, টাঙ্গাইল জেলা শাখার নতুন কমিটি এমপি হিরোর বিরুদ্ধে সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা লাগানোর অপচেষ্টার অভিযোগ টাঙ্গাইলে ছাত্রলীগ কর্তৃক বৃক্ষরোপণ কর্মসূচী পালন মানিক শিকদারের ব্যবস্থাপনায় টাঙ্গাইলে জাতীয় শোক দিবস পালন টাঙ্গাইলের পৌর মেয়র জামিলুর রহমানে মিরনের ব্যবস্থাপনায় টাঙ্গাইলে শোক দিবস পালন প্রবাসে থেকেও থেমে নেই টাঙ্গাইলের মুজাহিদুল ইসলাম শিপন মেয়র লোকমানের আত্মস্বীকৃত খুনি এমপি সাহেবের প্রোগ্রামে সক্রিয় জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি নিজেই প্রধান অতিথী, সভাপতিত্ব করবেন কে?
সরকারি কুমুদিনী কলেজ, টাঙ্গাইলে চলছে পুনর্মিলনীর আয়োজন

সরকারি কুমুদিনী কলেজ, টাঙ্গাইলে চলছে পুনর্মিলনীর আয়োজন

পুনর্মিলনী
পুনর্মিলনী

” এসো মিলি প্রাণের বন্ধনে”
সরকারি কুমুদিনী কলেজ, টাঙ্গাইল আসছে ডিসেম্বরে অনুষ্ঠিত হবে প্রাক্তন শিক্ষার্থীদের পুনর্মিলনী অনুষ্ঠান। উক্ত অনুষ্ঠানকে উপজীব্য করে বর্তমান অধ্যয়ণরত শিক্ষার্থীরাও তাদের অগ্রজদের সাথে পরিচয় হওয়ার সুযোগ পাবেন। অনুজদের সাথে অগ্রজরা তাদের রেখে যাওয়া স্মুতি রুমন্থন করার পাশাপাশি জীবনে চলার পথে বিভিন্ন ঘাত প্রতিঘাত কীভাবে পার হতে হবে সে বিষয়ে দিবেন তাদের জীবন থেকে পাওয়া অভিজ্ঞতার পাঠ।

উপমহাদেশের প্রখ্যাত সমাজসেবী, শহিদ বুদ্ধিজীবী দানবীর রায় বাহাদুর রণদা প্রসাদ সাহা নারীদের সুশিক্ষিত করার লক্ষ্যে টাঙ্গাইল, মানিকগঞ্জ সহ সারাদেশে অনেক কিছু করে রেখে গেছেন। বাংলাদেশের মেয়েরা অজ্ঞতার জাল ছিন্ন করে বিশ্বের বুকে মাথা উঁচু করে নিজের একটা পরিচয় তৈরী করতে পারে সেই ভাবনা থেকে তিনি তার মা শ্রীমতি কুমুদিনী দেবীর নামে টাঙ্গাইল শহরের প্রাণকেন্দ্রে ১৯৪৩ সালে প্রতিষ্ঠা করেন কুমুদিনী কলেজ যা বর্তমানে সরকারি কুমুদিনী কলেজ নামে খ্যাত।

১৯৭৯ খ্রি. জাতীয়করণ করা হয় আরপি সাহা প্রতিষ্ঠিত এই প্রানের কুমুদিনী।
সেই ১৯৪৩ খ্রি. থেকে বহু চড়াই-উতরাই পার করে বর্তমানে নারী শিক্ষা প্রতিষ্ঠান হিসেবে কুমুদীনি কলেজ সাফল্যের স্বর্ণশীখরে অবস্থান করছে। ১৯৪৩-২০১৯ এই দীর্ঘ ৭৫ বছরে অনেক নারী কুমুদিনী কলেজ ক্যাম্পাস থেকে পাঠ গ্রহণ করেছেন, অনেকেই আজ আর নেই। অনেক শ্রদ্ধেয় শিক্ষক শিক্ষিকা-ও বর্তমানে অতীত।

অনেকেই সাফল্যের চূড়ায় উঠেছেন। দেশে-বিদেশে বিভিন্ন স্থানে ছড়িয়ে ছিটিয়ে আছে প্রাক্তন শিক্ষার্থীরা। সেই সব প্রাক্তন শিক্ষক শিক্ষিকা এবং প্রাক্তন ছাত্রীদের একসাথে করার জন্য, বিছিন্ন হয়ে যাওয়া সফল মানুষেদের ভালোবাসার সুতায় বাঁধতে কলেজ কর্তৃপক্ষ পূনর্মিলনি উৎসবের উদ্যোগ নিয়েছেন, যার রীতিমত দু:সাহসিক উদ্যোগ-ও বটে।

প্রাক্তন শিক্ষক শিক্ষিকা এবং প্রাক্তন ছাত্রীরা আরেকবার দেখে যাক তাদের স্মৃতির পাতায় আবদ্ধ হওয়া পুরোনো সেই বিদ্যাপীঠ সরকারি কুমুদিনী কলেজ কে। স্মৃতির এলব্যাম টার ধুলো ঝেরে আরেকবার চোখ বুলিয়ে নিক তাদের সফলতার গল্প শুনিয়ে যাক তাদের যারা হাঁটছে তাদের ফেলে যাওয়া পথে।

ধন্য হবে এই উদ্যোগ, স্বার্থকতা পাবে এই আয়োজন যদি সকলের সহযোগিতায় সুন্দরভাবে সকলের সম্মিলীত প্রয়াসে সম্মিলন ঘটে এই মহাযজ্ঞের।

রায়বাহাদুর রণদা প্রসাদ সাহার মমতাময়ী মায়ের নামে প্রতিষ্ঠিত এই প্রতিষ্ঠানের সকল প্রাক্তন ও বর্তমান শিক্ষার্থীরা যোগ দিতে পারেন পুনর্মিলনীতে। অনুষ্ঠানকে প্রানবন্ত করতে দ্রুত রেজিষ্টেশনের কাজ সম্পন্ন করতে চেষ্টা করে যাচ্ছে সরকারি কুমুদিনী কলেজ এর বর্তমান ও প্রাক্তন শিক্ষার্থীদের সমন্বয়ে করা আয়োজক কমিটি।

খন্দকার নিবিতা জামান, কলেজের প্রাক্তন ছাত্রী রিইউনিয়ন কমিটিতে সেক্রেটারি হিসেবে মনোনীত হয়েছেন। রেজিষ্ট্রেশন করার সময় প্রায় শেষের দিকে। চলতি মাসের ৩০ তারিখেই রেজিষ্ট্রেশন এর শেষ সময়।

প্রাক্তন ছাত্রীদের রেজিষ্ট্রেশন ফি- ১০০০ টাকা।
বর্তমান একাদশ-দ্বাদশ শ্রেনীর ছাত্রীদের জন্য-৭০০ টাকা।
বর্তমান অনার্স-মাষ্টার্স অধ্যয়ণরতদের জন্য-ও ১০০০ টাকা।

কুমুদিনীর আকাশে বাতাসে যেন ধ্বনিত হচ্ছে,
আয় আর একটি বার আয় রে সখা
প্রাণের মাঝে আয়
মোরা সুখে দুখের কথা কবো
প্রাণ জুড়োবে তাই…

ডিসেম্বরের ২৭-২৮ তারিখে যুগের শ্রেষ্ঠ এক মিলনমেলায় কুমুদিনী কলেজ প্রাঙ্গন নতুন রূপে আবির্ভূত হবে।

প্রথম দিন কলেজের প্রাক্তন শিক্ষার্থী ও বর্তমান শিক্ষার্থীদের সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান এর পাশাপাশি বিকেলের দিকে লোকাল ব্যান্ড কনসার্ট থাকবে।দ্বিতীয় দিন খেলাধুলার পাশাপাশি জাতীয় পর্যায়ের গায়ক/গায়িকা থাকবেন।

আয়োজন করা হবে প্রাক্তন ছাত্রীদের মধ্যে যারা ম্যাডিকেল পেশায় নিয়োজিত আছেন তাদের সমন্বয়ে ফ্রি ম্যাডিকেল ক্যাম্প। চিকিৎসা নিতে পারবে বিনামূল্যে যে কেউ।

কলেজের গেস্ট/ভিজিটিং রুমে রিইউনিয়নের কার্যক্রম চলে নিয়মিত সকাল ১১ থেকে ২টা পর্যন্ত।

১৯৭৮ সালে বাংলাদেশ সরকার মানবসেবায় অসামান্য অবদান রাখায় রনদা প্রসাদ সাহার কাজের যথাযথ স্বীকৃতিস্বরূপ তাকে স্বাধীনতা পুরস্কার (মরণোত্তর) প্রদান করাহয়। রনদা প্রসাদ সাহার স্মৃতি বিজরিত কুমুদিনী পরিবারের পুনর্মিলনীতে যোগ দানের জন্য অনলাইনে-ও রেজিষ্ট্রেশন করা যায়। সেক্ষেত্রে রেজিষ্ট্রেশন ফি; বিকাশ/ডাচবাংলা একাউন্টের মাধ্যমে প্রদান করা যাবে। তাৎক্ষণিকভাবে রেজিষ্ট্রেশন ফি: প্রাপ্তির মেসেজ টিও পৌছে যাবে সম্পন্ন হলে।

চাতক পাখীর মতো যেন এই দিনকে উপজীব্য করে সেজে উঠছে প্রাক্তনরা আর বরণঢালা হাতে নতুনেরা ডাকছে সবার প্রাণের ক্যাম্পাসে।

খবরটি শেয়ার করুন..

Comments are closed.




© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি ।
নির্মান ও ডিজাইন: সুশান্ত কুমার মোবাইল: 01748962840