সংবাদ শিরোনাম:
দ্বিতীয়বারের মতো ঢাকার সেরা অফিসার ইনচার্জ ফারুক হোসেন ‘ভোট জালিয়াতি’ তদন্তের নির্দেশ চট্টগ্রামে গলায় ছুরি ধরে গৃহবধূকে গণধর্ষণ, ধর্ষকদের বাঁচাতে কাউন্সিলরপ্রার্থী বেলালের দৌড়ঝাঁপ নারী নির্যাতন মামলায় বিজয়নগর উপজেলা ছাত্রলীগের বিবাহিত সভাপতি মাহবুব হোসেন কারাগারে দুই নবজাতকের লাশ নিয়ে হাইকোর্টে বাবা কনস্টেবলকে মারধর, শ্রমিকলীগ নেতার স্ত্রী কারাগারে অবক্ষয় থেকে তরুণ সমাজকে রক্ষা করতে চলচ্চিত্রের ব্যাপক ভূমিকা রয়েছে- তথ্যমন্ত্রী পরিবার পরিকল্পনা অধিদপ্তর নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি 2020 কর কমিশনারের কার্যালয়ে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি ২০২০ ৯ দিনে করোনা জয়ী তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ
সর্বমহলে প্রসংশিত কুয়াকাটা হুজুর বনাম হিংসুকের কালো থাবা

সর্বমহলে প্রসংশিত কুয়াকাটা হুজুর বনাম হিংসুকের কালো থাবা

হেলিকপ্টার হুজুর কুয়াকাটার হাফিজুর রহমান
হেলিকপ্টার হুজুর কুয়াকাটার হাফিজুর রহমান

আলেমদের নিয়ে লেখালেখি আমার কাজ নয়।তবে কিছু আলেম উলামাদের কারণে যখন সমাজে অশান্তি বিরাজ করে তখন হৃদয়ে রক্তকরণ হয়। মাওলানা হাফিজুর রহমান ( কুয়াকাটা) একজন যুবক আলেম। যার বয়ানে হাজারো পাপিষ্ঠ দ্বীনের সঠিক পথে ফিরে এসেছে এবং আসছে। টেকনাফ থেকে তেতুলিয়া এবং রূপসা থেকে পাথুরিয়া যার বয়ান শুনার জন্য সর্বস্থরের জনতা অধীর আগ্রহে বসে থাকে। যেখানে কুয়াকাটা হুজুরের মাহফিল সেখানেই রচিত হয় নতুন ইতিহাস।

বাংলাদেশের বড় বড় মাদরাসা তথা পটিয়া, জিরিসহ বিভিন্ন মাদরাসার সভায় কুয়াকাটা হুজুর যেন মধ্যমণি। যারা বেদাতি বক্তাদের বয়ান শুনে বিভ্রান্ত হতেন তারা আজ কুয়াকাটা হুজুরের বয়ান শুনছে। গাড়িতে, বাড়িতে, অফিসে সর্বত্র যেন কুয়াকাটা হুজুরের বয়ান। আমি গবেষণা করে দেখলাম যুব সমাজের সিংহভাগই কুয়াকাটা হুজুরের বয়ান শুনে। আমি নিজেও হুজুরের বয়ান শুনি নিয়মিত।

আমার এলাকার স্কুল কলেজের ছাত্ররা কুয়াকাটা হুজুরের মাহফিলের জন্য এক বছর ধরে চেষ্টা করছে পাচ্ছে না। যত টাকা লাগে উনার পেছনে খরচ করবেন তবুও তাঁকেই চাই। এতে কুয়াকাটা হুজুরের দোষ কোথায়? তাঁকে ইচ্ছে করে কেউ হেলিকপ্টারে মাহফিলে নিয়ে যাবে তা তো মাহফিল কর্তৃপক্ষের ইখতিয়ার।

কুয়াকাটা হুজুর কর্তৃক হেলিকপ্টার এবং বয়ান নিয়ে দরকষাকষি করা হয়না।তবুও কেন তার বিরুদ্ধে অপপ্রচার করছে একটি মহল। আমার ক্ষুদ্র জ্ঞানে বলে, এই ষড়যন্ত্র হিংসা থেকে।

গতকাল চট্টগ্রামের চুনতি ১৯ দিন ব্যাপি মাহফিলে বয়ান করেন তিনি। তাঁর হাতে একজন হিন্দু ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করেছে এবং আরো আটজন কাগজ পত্রের ঘাটতির কারণে তাৎক্ষিণ হতে পারেনি। তাঁর বয়ানে মানুষ সঠিক পথের সন্ধান পাচ্ছে। বড় আল্লামা সেজে যারা অহমিকা করছেন তারা তো শয়তানের চরিত্র গ্রহণ করেছেন। বড় আল্লামাদের বয়ান শুনে শুধু মাদরাসার ছাত্র শিক্ষকরা আর হাফিজুর রহমান বয়ান শুনে আমজনতা। যারা গান শুনে, যিনা করে, এক কথায় পাপাচারে নিমজ্জিত এমন লোকই হাফিজুর রহমানের বয়ানের হেদায়ত প্রাপ্ত হচ্ছে।

আমার কথা হচ্ছে যেভাবেই হোক মানুষ হেদায়াত হোক। তা হোক হক্কানি পীরের দ্বারা, তা হোক বয়ান বা তাবলীগের মাধ্যমে। যার মাধ্যমে মানুষ দ্বীনের পথে আসবে সেই তো আলেমদের বন্ধু কিন্তু এখন যার মাধ্যমে মানুষ সঠিক পথের সন্ধান পায় তার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র বেশি হয়।

হাফিজুর রহমানের মাধ্যমে লাখ যুবক দাড়ি টুপি রাখছে। তাহলে কেন তার বিরুদ্ধে আল্লামাদের অবস্থান? কারো বয়ানে যদি মানুষ দ্বীনের বিধি বিধান মানে, আল্লাহর কাছে তওবা করে সঠিক পথে চলতে শুরু করে তিনিই তো ইসলামের বন্ধু।

যে ইসলামের বন্ধু তিনিই তো আলেম সমাজের বন্ধু হওয়ার কথা। কিন্তু এখন বিপরীত হচ্ছে কেন? যারা পর্দার আড়াল থেকে কলকাটি নাড়ছেন তাদের আমরা চিনি ও জানি। তারা বড় আলেম হতে পারে কিন্তু ইসলামের বন্ধু হতে পেরেছে বলে মনে হয়না। আলেমদের মাঝে যদি এত হিংসা কাজ করে সাধারণ জনতা যাবে কার কাছে?

একটি মহল হাফিজুর রহমান কে বয়ানের মাঠ থেকে মাইনাস করার চক্রান্ত করছে। কুয়াকাটা আসলে আমরা ঐ মাহফিলে বয়ান করতে যাবনা। এটা তো ইসলাম পরিপন্থি কথা। তিনি কি শরীয়াতের বিরুধিতা করেছে? যদি না করেই থাকে তাহলে কেন এতটা ঘৃণ্য ষড়যন্ত্রের জাল পেতেছেন? কারো উন্নতিতে হিংসা করে উন্নতি বাধাগ্রস্থ করা যায়না। উন্নতি দাতা স্বয়ং আল্লাহ তায়ালা। যদি সেই উন্নতির বিরুধিতা করেন তাহলে আল্লাহ যে তাকে উন্নতি দান করেছেন আল্লাহর ফায়সালার বিরুধিতা করার সামিল নয় কি?

উন্নতি দাতা আর অবনতিদাতা যদি আল্লাহই হয়ে থাকে তাহলে কারো উন্নতি সহ্য করতে না পেরে তার বিরুধিতা করা আল্লাহর বিরুধিতার করার ন্যায় হবেনা কেন? আলেম হয়ে জালেমের ন্যায় কাজ করলে ধ্বংস অনিবার্য। ষড়যন্ত্রকারীরা যত বড় আলেমই হোক না কেন হাফিজুর রহমানের বিরুধিতা করে তারা যে হীনমন্যতার পরিচয় দিয়েছেন তা বর্বর যুগের মানুষের আচরণকে হার মানিয়েছে।বর্তমান সর্বমহলে প্রশংসিত হাফিজুর রহমান সুতরাং সাধু সাবধান।

লেখকঃ নুর আহমদ সিদ্দিকী, কলামিষ্ট ও সাহিতিক।

খবরটি শেয়ার করুন..

Comments are closed.




© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি ।
নির্মান ও ডিজাইন: সুশান্ত কুমার মোবাইল: 01748962840