সংবাদ শিরোনাম:
টাঙ্গাইলে একইসাথে দুই করোনা যোদ্ধার জন্মদিন উদযাপন এমপি মমতা হেনা লাভলীর টাঙ্গাইলে বন্যার্তদের মাঝে ত্রান বিতরণ সার্ক মানবাধিকার ফাউন্ডেশন, টাঙ্গাইল জেলা শাখার নতুন কমিটি এমপি হিরোর বিরুদ্ধে সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা লাগানোর অপচেষ্টার অভিযোগ টাঙ্গাইলে ছাত্রলীগ কর্তৃক বৃক্ষরোপণ কর্মসূচী পালন মানিক শিকদারের ব্যবস্থাপনায় টাঙ্গাইলে জাতীয় শোক দিবস পালন টাঙ্গাইলের পৌর মেয়র জামিলুর রহমানে মিরনের ব্যবস্থাপনায় টাঙ্গাইলে শোক দিবস পালন প্রবাসে থেকেও থেমে নেই টাঙ্গাইলের মুজাহিদুল ইসলাম শিপন মেয়র লোকমানের আত্মস্বীকৃত খুনি এমপি সাহেবের প্রোগ্রামে সক্রিয় জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি নিজেই প্রধান অতিথী, সভাপতিত্ব করবেন কে?
হেরে গেলো রোনালদোর পর্তুগাল

হেরে গেলো রোনালদোর পর্তুগাল

ইউরো কাপ
ইউরো কাপ

ইউরো বাছাই পর্বে ম্যাচের শুরুতেই পিছিয়ে পড়ে রোনালদোর পর্তুগাল। রোনালদো ম্যাচের শেষ মুহুর্তে হ্যান্ড থেকে প্যানাল্টি পেয়ে একটি অসাধারণ গোল করেন। ম্যাচের প্রথমার্ধের একেবারে শুরুতেই মাত্র ৬ মিনিটে গোল হজম করে বসেন পর্তুগাল গোলকিপার।

পর্তুগাল ছিল ম্যাচের শুরু থেকেই আক্রমণাত্মক আর ইউক্রেন ছিল রক্ষণশীল। কাউন্টার এ্যাটাকের সুযোগ নিতে মুখিয়ে ছিল ইউক্রেন। অসাধারণ জায়গা থেকে শট পর্তুগাল গোলকিপার সেভ করলেও হেড থেকে আসা বলটি আর ধরতে পারেন নি ফলে চার মিনিটের মাথায় গোল হজম করতে হয়।

এর পর রোনালদোরা আর-ও নড়েচড়ে খেলতে শুরু করে। অনেকগুলো সুন্দর শর্ট প্রতিহত করেন ইউক্রেন এর গোল কিপার। রোনালদোর ভালো শটের পাশাপাশি কিছু শট ছিল যা তার সাথে বেমানন। হাল্কা শটগুলো জানান দিচ্ছিল আজ ভাগ্য সুপ্রস্নন নয়।

পর্তুগিজরা গোল পেয়েছে দ্বিতীয়ার্ধে শেষের দিকে। রোনালদোর পেনাল্টি শটে বল জালে জড়ালেও ইউক্রেনের বিপক্ষে ১-২ গোলের পরাজয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে ইউরোপ চ্যাম্পিয়নরা। বাছাই পর্বের ম্যাচেই অনেক বড় হোঁচট চ্যাম্পিয়ন দের জন্য।

ম্যাচের ঠিক দ্বিতীয় মিনিটেই কঠিন পরীক্ষার মুখোমুখি হয়েছিলেন পর্তুগালের গোলরক্ষক। ইয়ারেমচুকের দুর্বল শর্ট ছিল যে কারনে এ যাত্রায় তিনি উতরে যান। একেবারে সহজসাধ্য জায়গায় বলটি পেয়েও ঠিকমত ইয়ারেমচুক ঠিক মত শটটি করতে না পারার ফলে বলটি একেবারে নর্মালি ধরে ফেলেন পর্তুগাল গোলরক্ষক।

পর্তুগাল গোলরক্ষক প্যাট্রিসিও নি:সন্দেহে বিশ্বের প্রথম সারির গোলরক্ষক। ২ মিনিটের সময়ের শটটি থেকে রক্ষা পেলেও শেষরক্ষা হয়নি তার কারণ চার মিনিট আর ব্যর্থ হননি ইয়ারেমচুক। কর্নার থেকে পাওয়া বলে ক্রিস্টোভের হেড পুরোপুরি ক্লিয়ার করতে পারেননি প্যাট্রিসিও। বল পেয়ে জালে জড়াতে একটুও ভুল করেননি ইয়ারেমচুক। মাত্র ছয়মিনিটেই গোল হজম করে পিছিয়ে পড়ে রোনালদো রা আর হাওয়ায় ভাসতে থাকে ইউক্রেন।

হোক বাছাইপর্বের ম্যাচ। চ্যাম্পিয়নদের হারানোর যে স্বাদই আলাদা তা যেন হারে হারে উপভোগ করছিলেন ইউক্রেন।

ইউক্রেন কোচ বলেন “নিসন্দেহে এটি একটি গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচ আমাদের জন্য। হোক বাছাই পর্বের ম্যাচ কিংবা চূড়ান্তপর্বের ম্যাচ। চ্যাম্পিয়নদের হারানোর স্বাদই আলাদা। ছেলেরা বেশ ভালো খেলেছে। আর-ও কিছু সহজ সুযোগ ছিল। মাথা ঠান্ডা রেখে শটগুলো নিলে ব্যবধান আর-ও বাড়তে পারতো। হোক ১-০ কিংবা ২-১। জয় মানে জয়। আমরা এর বেশি কিছু ভাবছি না। আর-ও ম্যাচ আছে। সেগুলোর দিকে এখন নজর দিতে চাচ্ছি। আমরা ম্যাচ ধরে জিততে চাই। কোন ম্যাচেই প্রতিপক্ষকে সমীহ করতে চাই না। ইউক্রেন খেলোয়াররা চ্যাম্পিয়নদের হারিয়ে প্রমান করেছে তারাই এবার ইউরোপ সেরার মাঠে সেরা। শেষ পর্যন্ত টিমকে জয়ী হিসেবে দেখতে চাই।

পেনাল্টি থেকে গোল পেয়েছেন ঠিকই রোনালদো তবে তার সেই গোল দলের পরাজয় ঠেকাতে পারেনি। ইউক্রেনের বিপক্ষে ১-২ গোলের পরাজয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে ইউরোপ চ্যাম্পিয়নরা।

ডি বক্সে মাইলেস্কোর বাড়ানো বল প্লেসিং শটে জালে জড়ান ইয়ারমলেঙ্কো। এতে করে ২য় ধাক্কাটা ২৭ মিনিটেই দিয়ে ফেলেন ইউক্রেন। ২-০ তে তারা প্রথমার্ধে এগিয়ে থেকে খেলা শেষ করেন। অতিথীরা অসহায় আত্মসমর্পন করেন প্রথমার্ধেই।

প্রথমার্ধে রোনালদো বেশ কিছু ভালো সুযোগ কাজে লাগাতে পারেননি। ত্রিশ মিনিটে পরপর দুবার দুর্দান্ত সুযোগ পান তিনি। কিন্তু তাঁর দুর্বল শটে সেগুলো হাতছাড়া হয়। দলকে শান্তনা স্বরুপ একটি গোল-ও এনে দিতে সমর্থ হয়নি ১ম ৪৫ মিনিটে।

আজকের ম্যাচটিতে ইউক্রেন জয় পেয়েছে তাদের জমাট রক্ষণের কল্যাণে। আর আক্রমণাত্মক পর্তুগালের খেলোয়াড়েরা পুরো খেলায় গোলমুখে শট নিয়েছে মোট ২৪টি। এর মধ্যে লক্ষ্য ঠিক ছিল ১০টি শটের। বলের দখলেও এগিয়ে থাকা অতিথিরা গোলের দেখা পায় ম্যাচের ৭২ মিনিটে, যা তাদের পরাজয়ের ব্যবধান কমিয়েছে মাত্র।

ডি বক্সের ভেতর ইউক্রেনের একজন ডিফেন্ডারের হাতে বল লাগায় পেনাল্টির বাঁশি বাজান রেফারি, যা পর্তুগীজদের জন্য একটি গোলের সুযোগ এনে দেয়। সফল স্পটকিকে বল জালে জড়ান রোনালদো।

যদিও ইউক্রেনের মিডফিল্ডার স্তেপানেস্কো দ্বিতীয় হলুদ কার্ড দেখে মাঠ ছাড়েন। তারপর-ও ১০ জনের ইউক্রেনকে বোকা বানাতে পারেনি পর্তুগাল। ম্যাচটা তাদের হারতেই হলো। ম্যাচ শেষে রোনালদোকে খুব হতাশ দেখা যায়।

খবরটি শেয়ার করুন..

Comments are closed.




© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি ।
নির্মান ও ডিজাইন: সুশান্ত কুমার মোবাইল: 01748962840