সংবাদ শিরোনাম:
দ্বিতীয়বারের মতো ঢাকার সেরা অফিসার ইনচার্জ ফারুক হোসেন ‘ভোট জালিয়াতি’ তদন্তের নির্দেশ চট্টগ্রামে গলায় ছুরি ধরে গৃহবধূকে গণধর্ষণ, ধর্ষকদের বাঁচাতে কাউন্সিলরপ্রার্থী বেলালের দৌড়ঝাঁপ নারী নির্যাতন মামলায় বিজয়নগর উপজেলা ছাত্রলীগের বিবাহিত সভাপতি মাহবুব হোসেন কারাগারে দুই নবজাতকের লাশ নিয়ে হাইকোর্টে বাবা কনস্টেবলকে মারধর, শ্রমিকলীগ নেতার স্ত্রী কারাগারে অবক্ষয় থেকে তরুণ সমাজকে রক্ষা করতে চলচ্চিত্রের ব্যাপক ভূমিকা রয়েছে- তথ্যমন্ত্রী পরিবার পরিকল্পনা অধিদপ্তর নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি 2020 কর কমিশনারের কার্যালয়ে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি ২০২০ ৯ দিনে করোনা জয়ী তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ
৯ দিনে করোনা জয়ী তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ

৯ দিনে করোনা জয়ী তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ

তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ
তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ

মাত্র ৯ দিনে করোনাকে জয় করলেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক চট্টগ্রাম -৭ (রাঙ্গুনিয়া) আসনের সাংসদ ও তথ্যমন্ত্রী ড.হাছান মাহমুদ এমপি।

জানা যায়, গত শুক্রবার (১৬ অক্টোবর) তথ্যমন্ত্রীর করোনা পরীক্ষা করলে রিপোর্ট পজিটিভ আসে। এরপর রাতেই করোনা ভাইরাসের উপসর্গ নিয়ে ঢাকার স্কয়ার হাসপাতালে ভর্তি হন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ। পরে রোববার (১৮ অক্টোবর) বিকেলে স্কয়ার হাসপাতাল থেকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে (বিএসএমএমইউ) তাঁকে স্থানান্তর করা হয়। বর্তমানে তিনি সেখানেই চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

গত ২৪ অক্টোবর সন্ধ্যায় পুনরায় কোভিড-১৯ টেস্ট করার জন্যে তথ্যমন্ত্রীর সেম্পল সংগ্রহ করে নিয়ে যান বঙ্গবন্ধু মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ (পিজি) এর মধ্যে ফলাফল নেগেটিভ আসে।

তথ্যমন্ত্রী সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে তাঁর আইডি থেকে নিজের সুস্থতার বিষয় জানিয়ে লিখেন, ‘আল্লাহর রহমতে – সর্বশক্তিমান আমার কোভিড-১৯ পরীক্ষার রিপোর্টটি নেতিবাচক বলে প্রমাণিত হয়েছে।

আপনাদের সমস্ত প্রার্থনা, সহানুভূতি এবং সমর্থনের জন্য আমি আপনাদের সবার কাছে সত্যিই কৃতজ্ঞ। সবার জন্য শুভকামনা।’ এদিকে তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ চিকিৎসাধীন থাকা অবস্থাতেও মন্ত্রণালয়ের কাজের গতি অক্ষুন্ন রাখতে গত ক’দিনে অনেকগুলো নথিপত্র পর্যালোচনা ও স্বাক্ষর করেন এবং প্রয়োজনীয় নির্দেশনা দেন।

সরকারি অনুদানপ্রাপ্ত চলচ্চিত্রের নির্মাণকালের মেয়াদ বৃদ্ধি, চলচ্চিত্রের কাহিনীকার ও চিত্রনাট্যকারদের সম্মানী, রাশপ্রিন্ট অবলোকন, বিদেশি শিল্পী-কলাকুশলীদের আগমন, তাদের ওয়ার্ক পারমিটের মেয়াদ বৃদ্ধি, তথ্য অধিদফতর ও গণযোগাযোগ অধিদফতরের পদ সৃজন ও মঞ্জুরী, অধিদফতরগুলোর টিও অ্যান্ড ই-তে যানবাহন অন্তর্ভুক্তিসহ বেশ কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ নথিপত্র ইতিমধ্যেই স্বাক্ষর করেন মন্ত্রী।

অন্যদিকে তথ্যমন্ত্রী হাছান মাহমুদ করোনাকালে প্রায় প্রতিদিনই সচিবালয় ও আওয়ামী লীগের দলীয় কার্যালয়ে কাজ করেছেন। করোনাকালে মন্ত্রীদের মধ্যে সবচেয়ে সক্রিয় ছিলেন তিনি। আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক হাছান মাহমুদ চট্টগ্রাম-৭ (রাঙ্গুনিয়া) আসন থেকে তিনবারের নির্বাচিত সংসদ সদস্য।

প্রথমে পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী এবং ৬ মাস পর পরিবেশ ও বন প্রতিমন্ত্রী এবং তিন বছরের মাথায় এই মন্ত্রণালয়ের পূর্ণমন্ত্রী হিসেবে শপথ নেন ড. হাছান মাহমুদ।

২০১৪ থেকে ২০১৮ পর্যন্ত বন পরিবেশ ও জলবায়ু বিষয়ক মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপরিত দায়িত্ব পালন করেন তিনি। এরপর সরকারের তথ্যমন্ত্রী হিসেবে নিযুক্ত হন ড. হাছান মাহমুদ। ২০০১ সালের অক্টোবরে হাছান মাহমুদ যোগ দেন আওয়ামী লীগ সভানেত্রীর বিশেষ সহকারী হিসেবে।

অল্পদিনের মধ্যেই ২০০২ সালে আওয়ামী লীগের সম্মেলনে তিনি দলের বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদকের দায়িত্ব পান। এক দশকেরও বেশি সময় ধরে সে দায়িত্ব পালন করেন ড. হাছান মাহমুদ।

২০০৮ সাল পর্যন্ত তিনি বিশ্বস্ততার সাথে আওয়ামী লীগ সভানেত্রী ও বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বিশেষ সহকারীর দায়িত্ব পালন করেন। এরপর ড. হাছান মাহমুদ পরপর দুই কমিটিতে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করছেন দক্ষতার সাথে। বর্তমানে তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ যুগ্ম সম্পাদকের পাশাপাশি দলের মূখপাত্র হিসেবেও দায়িত্ব পালন করছেন।

খবরটি শেয়ার করুন..

Comments are closed.




© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি ।
নির্মান ও ডিজাইন: সুশান্ত কুমার মোবাইল: 01748962840